ওয়ার্ল্ড ব্যাংক গ্র“প ও চিটাগাং চেম্বার’র পরামর্শ সভা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৩১ অক্টোবর: ওয়ার্ল্ড ব্যাংক গ্র“প ও দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র যৌথ আয়োজনে বাংলাদেশ কান্ট্রি পার্টনারশীপ ফ্রেমওয়ার্ক ঃ ২০১৬-২০২০ বিষয়ক এক পরামর্শ সভা ৩১ অক্টোবর চিটাগাং চেম্বার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন সেক্টরের নেতৃবৃন্দ অবকাঠামোসহ সমন্বিত আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিশদ প্রস্তাবনা উপস্থাপন করেন।Photo(WB) চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম’র সভাপতিত্বে বাংলাদেশে ওয়ার্ল্ড ব্যাংক এর প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেন, আইএফসি’র প্রোগ্রাম ম্যানেজার মাশরুর রিয়াজ, অপারেশন অফিসার মোহাম্মদ লুৎফুল্লাহ্, চেম্বার সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, চেম্বার পরিচালকবৃন্দ এম. এ. মোতালেব, আলহাজ্ব মোঃ সিরাজুল ইসলাম, এস. এম. শামসুদ্দিন ও অঞ্জন শেখর দাশ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. ওবায়দুল করিম, প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার এম. আলী আশরাফ, বিকেএমইএ’র শওকত ওসমান, এইচআরসি’র সিনিয়র পরিচালক কাজী রুকুনউদ্দীন আহমেদ, চট্টগ্রাম বন্দরের টার্মিনাল ম্যানেজার এনামুল হক, সিসিসি’র প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা প্রফেসর এম. শহীদুল্লাহ, প্রফেসর ড. মাহমুদ চৌধুরী আরজু, বিএসআরএম’র রুহী এম. আহমেদ, বারাকা পতেঙ্গা পাওয়ার লিঃ’র মনজুর কে. শফি, মার্কস বাংলাদেশ লিঃ’র মোহাম্মদ সরওয়ার আলম চৌধুরী, মমতা’র মোঃ ফারুক, ওমান এয়ার’র শেখ আদনান উদ্দিন, ইউসুফ মনসুর এবং ইপসা’র শহীদুল ইসলাম আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। মুক্ত আলোচনা সঞ্চালনা করেন চেম্বার পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ। অন্যান্যদের মধ্যে চেম্বার পরিচালকবৃন্দ মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, মোঃ অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), মোঃ আমজাদ হোসেন চৌধুরীসহ বিভিন্ন সেক্টরের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম স্বাগতঃ বক্তব্যে বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি, অবকাঠামোর মাধ্যমে প্রাইভেট সেক্টরের উন্নয়ন, কর্মসংস্থান ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি নিশ্চিতকরণ, রেল যোগাযোগের উন্নয়ন, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহানগরে যানজট নিরসনসহ পাবলিক ট্রান্সপোর্টের সুব্যবস্থা করা, কৃষিখাতে মার্কেটিং চেইন স্টাবলিশ করা, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচীর বাস্তবায়নে সরকারের ক্যাপাসিটি বিল্ডিং, সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি কর্মমূখী ও কারিগরি শিক্ষা, রপ্তানি পণ্যের বহুমূখীকরণ ও মূল্য সংযোজন এবং প্রয়োজনীয় দক্ষ জনশক্তি তৈরীতে বিশ্ব ব্যাংকের প্রতি অনুরোধ জানান। সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ বিশ্ব ব্যাংককে এদেশের অন্যতম প্রধান সহযোগী প্রতিষ্ঠান উল্লেখ করে সামগ্রিক উন্নয়ন কর্মকান্ডে স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতা বজায় রাখার আহবান জানান। ওয়ার্ল্ড ব্যাংক এর প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেন জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ৬% এর অধিক করতে এবং অতি দরিদ্রের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনতে অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টি অধিক জরুরী বলে মন্তব্য করেন। তিনি জ্বালানী খাত, অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ বিশেষ করে পরিবহন খাতের উন্নয়ন ও নৌপথের ব্যবহার বৃদ্ধিসহ সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি আঞ্চলিক বাণিজ্য সহায়তা বৃদ্ধি এবং পরিকল্পিত ও প্রতিযোগিতামূলক নগরায়নের উপর বিশেষভাবে গুরুত্বারোপ করেন। আইএফসি’র প্রোগ্রাম ম্যানেজার মাশরুর রিয়াজ এদেশে তাদের কর্মকান্ডের বিশদ বর্ণনা দেন এবং সার্বিক উন্নয়নে বেসরকারী খাতের উন্নয়নকে অত্যধিক গুরুত্বপূর্ণ বলে মন্তব্য করেন। সভায় বক্তারা অতি দরিদ্রদের জন্য ভাড়াভিত্তিক আবাসন, সকলের জন্য একই রকম শিক্ষা ব্যবস্থা, উপকূলীয় অঞ্চলে স্বল্প ব্যয়ে সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণে কারিগরি সহায়তা, সামাজিক পরিবেশ উন্নয়ন, বিদ্যুতের ট্রান্সফর্মার ও সঞ্চালন লাইনের সংস্কার, চট্টগ্রামে মেট্রো রেল স্থাপন, কর্ণফুলী নদীর দোষণরোধ, সাগর থেকে ভূমি পুনরুদ্ধার, বন্ধ ইন্ডাস্ট্রিসমূহ পুনরায় চালু করা, আয়কর ব্যবস্থা সংস্কার, জনশক্তি রপ্তানিতে প্রতিযোগিতা সক্ষমতা অর্জন, চট্টগ্রাম মহানগর ও বন্দর নিয়ে ৫, ১০ ও ২০ বছর মেয়াদী পরিকল্পনা প্রণয়ন, কাস্টমস ও বন্দরের মধ্যে সমন্বয়সাধনের মাধ্যমে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি, গার্মেন্ট পল্লী নির্মাণ, ফরওয়ার্ডারদের জন্য ওয়্যারহাউস নির্মাণ, এনবিআর’র শুল্কায়ন ব্যবস্থার আধুনিকায়ন, রিয়েলএস্টেট খাতে সহায়তা প্রদান, বিশ্ব ব্যাংকের ঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানের মূলধনের পরিমাণের বাধ্যবাধকতা নমনীয়করণ, বিকল্প জ্বালানী, অপুষ্টি দূরীকরণ, গার্মেন্ট কর্মীদের জন্য ডেলিভারী হোম এবং এসএমই সেক্টরের জন্য ঋণ সহায়তা প্রদানের বিষয় বিবেচনাপূর্বক বিশ্ব ব্যাংকের ফ্রেমওয়ার্কে অন্তর্ভূক্তির আহবান জানান। অপরাহ্নে সুশীল সমাজ ও এনজিও নেতৃবৃন্দদের নিয়ে আরেকটি অধিবেশন চেম্বার পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply