শিশির-আসাদদের হয়রানি বন্ধ করুন: এইচআরডব্লিউ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৭ অক্টোবর: জামায়াতে ইসলামীর আমির মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর মানবতাবিরোধী মামলার গুরুত্বপূর্ণ আইনজীবী আসাদ উদ্দিনের অবিলম্বে মুক্তিরshisir আহ্বান জানিয়েছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে নিউ ইয়র্কভিত্তিক সংস্থাটি বলছে, জামায়াতের শীর্ষ দুই নেতার বিরুদ্ধে আপিল ও রিভিউ শুনানির দুই সপ্তাহ আগে তাকে গ্রেপ্তার করা হলো। গত ২ অক্টোবর আসাদ উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গতকাল সোমবার তাকে দ্ইু দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। নিউ ইয়র্কভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থাটি জানায়, একই দিন সন্ধ্যায় জামায়াত নেতাদের আরেক কৌঁসুলি শিশির মুহাম্মদ মনিরের বাসায় গ্রেপ্তার অভিযান চালায় পুলিশ। কিন্তু তাকে না পেয়ে তারা ফিরে যায়। এরপর তার চালককে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে অবশ্য তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। HRW‘আসাদের গ্রেপ্তার আর শিশিরের বাসায় অভিযান অত্যন্ত উদ্বেগের’ বলছিলেন এইচআরডব্লিউর এশীয় বিভাগের পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস। ‘যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের আসামিপক্ষের কৌঁসুলিদের ভীতি প্রদর্শনের জন্য যুক্তিহীন অভিযোগে এই গ্রেপ্তার ও অভিযান চালানো হয়েছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে- যা আইনের শাসেনের গুরুতর লঙ্ঘন।’ এর আগেও যুদ্ধাপরাধে অভিযুক্তদের আইনজীবীদের হয়রানি করা হয়েছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করেছে এইচআরডব্লিউ। এইচআরডব্লিউ বলেছে, বাংলাদেশ এবং আন্তর্জাতিক আইনে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষ-উভয়পক্ষের আইনজীবীদের ভীতিমুক্ত পরিবেশে কাজ করার গুরুত্বের কথা বলা হয়েছে। এছাড়া তো তারা তাদের ক্লায়েন্টদের পূর্ণাঙ্গভাবে প্রতিনিধিত্ব করতে পারে না। বিবৃতিতে ব্র্যাড অ্যাডামস বলেন, ‘অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ শুনানির আগে আসামিপক্ষের আইনজীবীদের ওপর সর্বশেষ এই হামলা যুদ্ধাপরাধের বিচারের বিশ্বাসযোগ্যতা ওপর আরো একটি আঘাত। আমরা ১৯৭১ সালের যুদ্ধের সময় সংঘটিত অপরাধের বিচার দীর্ঘদিন ধরেই চাইছি কিন্তু তা ন্যায়বিচারের বিনিময় ছাড়া হতে পারে না।’ বিবৃতিতে বলা হয়, যুদ্ধাপরাধের বিচারে ন্যায়বিচার মারাত্মকভাবে লঙ্ঘিত হয়েছে বলে বিশ্বাসযোগ্য অভিযোগ রয়েছে। সূত্র: আরটিএনএন

Leave a Reply