পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৪ অক্টোবর : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, চট্টগ্রামের পবিত্র ভূমিতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অটুট রয়েছে।DSC_0155 তিনি বলেন, অশুভ শক্তির বিনাশ, ঐক্য ও মহামিলনের প্রতীক দূর্গোৎসব যুগ যুগ ধরে সনাতনী ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মাঝে সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির সেতুবন্ধন রচনা করে যাচ্ছে। মেয়র বলেন, প্রতি বছর দূর্গোৎসবের মধ্যে দিয়ে অসৎ ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে সত্য, সুন্দর ও ন্যায় প্রতিষ্ঠা এবং শান্তি ও কল্যানে ব্রতী হওয়ার প্রেরনা যোগায়। তিনি বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পরিচালনায় DSC_0209জাতি-ধর্ম-বর্ণ-সম্প্রদায় নির্বিশেষে সকলের সার্বিক সহযোগিতা রয়েছে। মেয়র নাগরিক সেবার স্বার্থে যে কোন ঝুঁকি গ্রহনে তিনি প্রস্তুত রয়েছেন বলে অভিমত ব্যক্ত করেন। মেয়র বলেন, নারী শক্তি মহামায়া দেবী দূর্গা ১০ ধরনের অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ৯ দিন ব্যাপি যুদ্ধ শেষে মহিষাসুরকে পরাজিত ও হত্যা করে অত্যাচারীর পতন ঘটান। সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, বাংলাদেশে হাজারো অত্যাচারি অসুরের উদ্ভব হয়েছে, তারা দেশ ও জাতিকে পেছনে নিয়ে যেতে চায়। দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির চাকাকে চলমান রাখতে আজ আমাদের চেতনায় চাষ করতে হবে মানবিক গুণাবলি। মেয়র বলেন, চট্টগ্রামকে মেঘা সিটিতে উন্নিত করা হবে এবং দলমতের উর্দ্ধে উঠে অনুন্নত ওয়ার্ড গুলোকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে উন্নয়ন করা হবে। তিনি নগরীর ২৯৮ টি পূজা মন্ডপে শান্তি শৃংখলা রক্ষা সহ সার্বিক নিরাপত্তা বিধানে প্রশাসনের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান। মেয়র চট্টগ্রাম মহানগর থানা, ওয়ার্ড ও মন্ডপ ভিত্তিক পূজা উদযাপন কমিটি, কাউন্সিলর, সমাজ সেবক , সাংবাদিক সহ বিভিন্ন শ্রেনী ও পেশার সকলকে সাধুবাদ জানান। DSC_0251২৩ অক্টোবর বিকেলে নগরীর পতেঙ্গা সী বীচে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনায় ও চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন এ সব কথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্রী বিদ্যালাল শীল প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কাউন্সিলর সালেহ আহমদ চৌধুরী, কাউন্সিলর হাজী জয়নাল আবদীন, শৈবাল দাশ সুমন, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কউন্সিলর নিলু নাগ, সিটি কর্পোরেশনের সচিব রশিদ আহমদ, সাবেক কাউন্সিলর বিজয় কুমার চৌধুরী কিষান, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এয়াকুব নবী। প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ কেন্দ্রিয় কমিটির সাবেক বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট চন্দন তালুকদার। আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রতœা কর দাশ টুনু। এছাড়াও সাবেক সভাপতি বিমল কান্তি দে, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক অর্পন কান্তি ব্যানার্জি, রানা বিশ্বাস, লায়ন আশিষ ভট্টচার্য, সুমন দেবনাথ, পতেঙ্গা থানার সাধারণ সম্পাদক লিটন চৌধুরী, সিবিচ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ওয়াহিদুল আলম, এছাড়াও আলোচনা করেন মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদ ও থানা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বৃন্দ। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন পূজা উদযাপন পরিষদের অঞ্জন দত্ত, শ্যামল মজুমদার, অরুন রশ্মি দত্ত এবং চন্ডি পাঠ করেন শিবু বিশ্বাস। অনুষ্ঠানের শুরুতে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন আগ্রাবাদ গোসাইলডাঙ্গা একতা গোষ্টি সার্বজনিন দূর্গোৎসব পরিষদকে ১ম পুরষ্কার, টেরী বাজার সার্বজনিন পূজা কমিটি (আফিন্না গলি) পূজা উদযাপন পরিষদকে দ্বিতীয় পুরষ্কার, রাজা পুকুর লেইন মৈত্রী সংসদ পূজা উদযাপন পরিষদকে ৩য় পুরষ্কার তুলে দেন। এছাড়া দক্ষিণ কাট্টলী স্বরস্বতি কুঠির দূর্গা মন্দিরের প্রতিমাকে শ্রেষ্ঠ প্রতিমা, পাথরঘাটা সার্বজনীন পূজা উদযাপন পরিষদ (গুরখা ডাক্তার লেইন)কে শ্রেষ্ঠ সাজসজ্জা এবং মনোহর খালীর পূজা উদযাপন পরিষদ ইকবাল রোডকে শ্রেষ্ঠ আলোক সজ্জার পুরষ্কার প্রদান করেন মেয়র। নগরীর ১৬টি থানা থেকে ১টি করে পূজা মন্ডপকে বিশেষ পুরষ্কার দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র ও অতিথিদের ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদ কর্মকর্তা ও সদস্য বৃন্দ।

Leave a Reply