১১০০ পাইলট বিক্ষোভে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৪ এপ্রিল ২০১৯ ইংরেজী, রবিবার: প্রতিষ্ঠার পর সবচেয়ে বড় বিক্ষোভের মুখে পড়েছে ভারতের বিমান সংস্থা জেট এয়ারওয়েজ। প্রতিষ্ঠানটির ১১শ’র বেশি পাইলট বকেয়া পাওনা আদায়ে সোমবার থেকে বিমান না চালানোর হুমকি দিয়েছে। ফলে অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে জেট এয়ারওয়েজ।
ভারতের গণমাধ্যমের খবর, বহুদিন ধরেই আর্থিক সমস্যায় জর্জরিত জেট এয়ার। তবে এবারই বড়সড় বিক্ষোভ প্রতিবাদে নামলেন সংস্থাটির পাইলট ও কর্মীরা৷ দিল্লি ইন্দিরা গান্ধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ৩ নম্বর টার্মিনালের সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভ দেখিয়ে বকেয়া পাওনা দাবি করছেন তারা। সেই সঙ্গে সোমবার থেকে আর বিমান চালাবেন না বলেও ঘোষণা দিয়েছেন।
গতকাল শনিবার সারাদিনে জেটের মাত্র ৬-৭টি বিমান চলাচল করেছে৷ অবশ্য এই অবস্থা নতুন নয়৷ গত এক মাস ধরেই বিমান উড্ডয়নের সংখ্যা নিয়মিত কমছে জেটের৷
ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে বলে জানা গেছে। তবে সেই হস্তক্ষেপের তোয়াক্কা না করেই কর্মীদের হুমকি, সোমবার থেকেই বন্ধ করা হচ্ছে জেটের সব বিমানের কার্যক্রম৷
এদিকে মুম্বাইতে শুক্রবার এক মৌন মিছিল করেন জেটের সব কর্মী৷ অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রকের সচিব প্রদীপ সিং খারোলা এর আগে জানিয়েছিলেন জেটের দুরবস্থার কথা৷
প্রসঙ্গত, তিন মাসের বেশি বেতন বকেয়া জেটের বিমানচালকদের। চরম সংকটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে জেট এয়ারওয়েজ। এখন ঘাড়ে প্রায় সাত হাজার কোটি টাকার দেনার বোঝা রয়েছে।
এমন পরিস্থিতিতে জেট এয়ারওয়েজ এপ্রিল মাস পর্যন্ত ১৩টি আন্তর্জাতিক রুটে বিমান না চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়া অর্থের অভাবে ভাড়া না মেটানোয় বসিয়ে দেওয়া হয়েছে একাধিক বিমান।

Leave a Reply

%d bloggers like this: