সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ ও গৃহযুদ্ধের ঝুঁকিতে বাংলাদেশ: ইইউ প্রতিনিধিদলের নেতা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : বাংলাদেশ সফর শেষে ফিরে গিয়ে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের euমানবাধিকারবিষয়ক উপকমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ক্রিশ্চিয়ান প্রেদা তার লেখায় এমন মন্তব্য করেছেন যে, বাংলাদেশ বর্তমানে সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ ও গৃহযুদ্ধের ঝুঁকিতে পড়েছে। ‘৭২ ডে ওরে লা ঢাকা’ (ঢাকায় ৭২ ঘণ্টা) শীর্ষক লেখায় তিনি এ মন্তব্য করেন। উল্লেখ্য, গত ১৬ ফেব্রুয়ারি এই প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশ সফরে আসে। ক্রিশ্চিয়ান প্রেদা তার লেখায় উল্লেখ করেন, একদিকে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট নতুন নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন করছে। অন্যদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট ২০১৪ সালের নির্বাচনকে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা দাবি করে তাদের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে ব্যস্ত রয়েছে। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির অন্যতম একটি ছিল ১৯৭১ সালে দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের বিরোধীদের বিচার করা। ইতিমধ্যে শেখ হাসিনার সরকার জামায়াতের অন্যতম নেতা আবদুল কাদের মোল্লার ফাঁসির রায়ও কার্যকর করেছে। এ দুই দলের আধিপত্যের রাজনীতির কারণে দেশটিতে অচলাবস্থা বিরাজ করছে। এতে নাগরিক ও সামাজিক অধিকার আরও উদ্বিগ্ন অবস্থায় পতিত হয়েছে। সব মিলিয়ে দেশটি সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ ও গৃহযুদ্ধের ঝুঁকিতে রয়েছে। প্রেদার নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলটি ঢাকার মগবাজারে মানবাধিকার কমিশনের কার্যালয়ে ড. মিজানুর রহমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। কমিশন থেকে বের হয়ে যাওয়ার সময় ক্রিশ্চিয়ান প্রেদা মানবাধিকার নিয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের মন্তব্যের প্রতিবাদ করেন। সে সময় তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। আর সে জন্যই আমরা এ দেশে এসেছি। প্রেদা ‘ঢাকায় ৭২ ঘণ্টা শীর্ষক’ তার ওই লেখায় আরও বলেন, কয়েক বছরে বিএনপির সঙ্গে জামায়াতে ইসলামীর ঘনিষ্ঠতা বেড়েছে। আওয়ামী লীগ এ ঘনিষ্ঠতার নিন্দা জানিয়েছে। দেশটিতে এখন বিরোধীদের সন্ত্রাসী হিসেবে অভিযুক্ত করা হচ্ছে। লেখায় তিনি উল্লেখ করেন, শেখ হাসিনার সরকার তাদের ক্ষমতাকে বৈধ দাবি করে তাদের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কাজ করে যাচ্ছে। বিএনপি ও তাদের জোট দলগুলো হাসিনার সরকারকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাহীন অবৈধ হিসেবে ঘোষণা করে নতুন নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে, ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনা ২৩২ আসনে জয়লাভ করে এবং এর মধ্যে ১৫৪টিতে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছাড়াই জয় পায় ক্ষমতাসীন জোট। দুই মাস ধরে খালেদা জিয়ার অবরুদ্ধ রয়েছেন বলেও লেখায় উল্লেখ করা হয়। ক্রিশ্চিয়ান প্রেদা তার লেখায় বাংলাদেশে শ্রমিকদের কর্মক্ষেত্রের পরিবেশ, বাল্যবিবাহ ও রোহিঙ্গা ইস্যুও তুলে ধরেন। সূত্র : শীর্ষনিউজডটকম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*