সুষ্ঠু গণতন্ত্র চর্চা ও জনগণের আস্থা রাখার জন্য বিএনপিকে পরামর্শ : শেখ হাসিনা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : ডিসেম্বর ১৭, ২০১৬
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ শনিবার রাজধানীর ফার্মগেটে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন। অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলের রাজনীতির তীব্র সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সুষ্ঠু গণতন্ত্র চর্চা ও জনগণের ওপর আস্থা রাখার জন্য বিএনপিকে পরামর্শ দিয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রী আজ রাজধানীর ফার্মগেটে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় এ কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি একটা কথাই বলব, যদি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেন তাহলে নানা কথা না বলে গণতন্ত্রের চর্চা করুন। সেটাই বাস্তবতা।’ ভিন্ন পথেক্ষক্ষমতা দখলে বিএনপির অপচেষ্টার প্রতি ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সে জন্য তারাতো চেষ্টা করেছে। কিন্তু কোনো সাড়া লাভে ব্যর্থ হচ্ছে।’ শেখ হাসিনা বলেন, ‘তিনি (খালেদা জিয়া) যাদের ওপর আশা করেন, তারাও এতে সাড়া দেবে না।’
প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি তাঁর ভাষণে, দেশের উন্নয়নের ধারা এবং ২১ বছর পর যুদ্ধাপরাধী, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচারসহ বিভিন্ন হত্যাকাণ্ডের বিচার শুরুর মাধ্যমে দেশে যে সামাজিক ন্যায়বিচারের ধারা পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে তা তুলে ধরেন। এই ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তিকে ভোট দিয়ে পুনরায় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘তাঁর (বেগম জিয়া) এমন একটা চেষ্টা যে এমন কিছু হোক যেন তাঁকে তারা (তৃতীয় কেউ) নাগর দোলাতে চড়িয়ে ক্ষমতায় বসিয়ে দেবে। ওই আশাও এখন দুরাশা।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রপতির কাছে তারা (বিএনপি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে। তিনি তাদের ডেকেছেন, তাঁরা আলোচনা করবেন। রাষ্ট্রপতি সব দলের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত দেবেন। আমাদের আস্থা ও বিশ্বাস জনগণের ওপর আছে। আমরা জনগণের উন্নয়ন ও কল্যাণে কাজ করেছি। সে জন্য জনগণের ওপর আমরা কখনো বিশ্বাস ও আস্থা হারাই না। কাজেই জনগণই আমাদের মূল শক্তি। সেটাই আমি বিশ্বাস করি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে উন্নয়নের ধারা তাঁর সরকার সূচনা করেছে তার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে হবে। তিনি বলেন, একই সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশকে গড়ে তুলছি, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলছে, ১৫ আগস্টের খুনিদের বিচার করেছি, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার হচ্ছে। এ রকম বহু অন্যায়-অপরাধ এবং জঙ্গিবাদের বিচার চলছে। কাজেই এগুলো অব্যাহত রাখতে হবে। আর আজকে যেসব উন্নয়ন প্রকল্প শুরু হয়েছে সেগুলোর বাস্তবায়ন ঘটিয়ে বাংলাদেশকে আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়ে তুলতে চাই। আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের চলমান গতিকে আমরা ধরে রাখতে চাই। এ দেশে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাই শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করবে আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বক্তৃতা করেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: