সুষ্ঠু ও উৎসবমুখর পরিবেশে এফবিসিসিআই’র নির্বাচনের ভোট চলছে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৪ মে ২০১৭, রবিবার: সুষ্ঠু ও উৎসবমুখর পরিবেশে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) নির্বাচনের ভোট চলছে। সকাল ৯টা থেকে ভোট শুরু হয়েছে। বিরতিহীনভাবে এই ভোট চলবে বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত।
এ নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী তৈরি পোশাক মালিকদের সংগঠন- বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন ভোট দিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘ভোট সুষ্ঠুভাবেই সম্পন্ন হচ্ছে। সবাই উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দিচ্ছে।’
ভোট কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠনের এ ভোটকে কেন্দ্র করে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করেছে। ভোটগ্রহণ উপলক্ষে এখানে বিভিন্ন প্রার্থীর সমর্থকেরা তদের পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছে।
যদিও সভাপতি প্রার্থী শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনের প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় এফবিসিসিআই নির্বাচনের অনেকটা আমেজ হারিয়েছে বলে মনে করছেন অনেকে। শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন এখন এফবিসিসিআইয়ের প্রথম সহসভাপতি।
এবারের এফবিসিসিআই নির্বাচনে ৬০ পরিচালক পদের মধ্যে চেম্বার ও অ্যাসোসিয়েশন থেকে ১২টি করে মোট ২৪টি পদে পরিচালক মনোনয়ন করা হয়। চেম্বার ও অ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ থেকে ১৮টি করে মোট ৩৬টি পরিচালক পদে সরাসরি নির্বাচন হবে। তবে ভোট দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন কেবল অ্যাসোসিয়েশনের ভোটাররা। কারণ চেম্বারের ১৮টি পরিচালক পদে প্রার্থী ১৮ জন হওয়ায় ভোট নেওয়ার প্রয়োজন হয়নি। তাঁরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পরিচালক হয়েছেন।
শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন চেম্বারে ভোট না হওয়ার বিষয়ে সাংবাদিকদের বলেন, প্রার্থী হওয়া মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার। প্রার্থিতা থেকে সরে যাওয়াও গণতান্ত্রিক অধিকার। চেম্বারে পরিচালক পদে যদি প্রতিদ্বন্দ্বী থাকতেন, তাহলে ভালো হতো। না থাকাতেও আইনের কোনো ব্যত্যয় হয়নি। সুষ্ঠু ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হচ্ছে। এ জন্য আমরা সবাই খুশি।
নির্বাচন বোর্ডের প্রধান করা হয়েছে সংসদ সদস্য অধ্যাপক আলী আশরাফকে। আর নির্বাচনে আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএমএ) প্রাক্তন সভাপতি জাহাঙ্গীর আল আমিন।
২০১৫ সালের ২৩ মে এফবিসিসিআইয়ের সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ৩১ মে আবদুল মাতলুব আহমাদের নেতৃত্বাধীন বর্তমান কমিটি দায়িত্ব নেয়।
এফবিসিসিআই হলো পণ্যভিত্তিক ৩৮০টি ব্যবসায়ী সংগঠন এবং ৮১টি চেম্বারের যৌথ সংগঠন। এসব ব্যবসায়ী সংগঠনের মনোনীত সদস্যরা ভোট দিয়ে এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক নির্বাচন করেন। অবশ্য ১২টি করে চেম্বার ও অ্যাসোসিয়েশনের একজন করে প্রতিনিধি মনোনীত পরিচালক হন। পরিচালকেরা ভোট দিয়ে সভাপতি ও দুইজন সহসভাপতি নির্বাচন করেন। চেম্বারে ভোটার সংখ্যা ৪৫৪ জন এবং অ্যাসোসিয়েশনে ভোটার ১ হাজার ৮৮৭ জন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: