সুফির পিএইচপিতে শ্রমিকদের আর্তনাদ!

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইংরেজী, রবিবার: ‘শ্রমের মূল্য নিয়ে যারা, করছে তেলেসমাতি, তারাই নাকি কালেভদ্রে, দেশের সেরা জাতি। সারাটা দিন খাটুনি খেটে, পায় না শ্রমের মূল্য, পূঁজিপতি শোষক শ্রেণী, তারা পশুর তুল্য। নুন আনতে পান্তা পুরায়, পায় না শ্রমিক ভাত, শ্রমিকের শ্রমে বড়লোক, সেটাই তার জাত। দারিদ্র্যের কষাঘাতে চলছে, শ্রমিক জীবন, একটু সুখের ছোঁয়া বিধি, দেয়নি তাদের ভুবন।’ দুমুঠো অন্নের জন্য শ্রমিকেরা দিনরাত পরিশ্রম করে। সেই শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধিসহ ৬ দফা দাবীতে সুফি মিজানের পিএইচপিতে শ্রমিকরা কর্মবিরতি পালন করেছে। আবার সেই সুফি দিনরাত ইসলামের দাওয়াত নিয়ে দেশের এ প্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে ঘুরে বেড়ায়। তিনি জানেন না ইসলাম বলেছে শ্রমিকের ঘাম শুকাবের আগে তার মজুরী দিয়ে দাও। সীতাকুণ্ড উপজেলার কুমিরা এলাকার পিএইচপি ফ্যাক্টরির সামনে আজ সকাল ৬ টা থেকে বেলা ১১ টা পর্যন্ত উক্ত কর্মবিরতি পালন করে। এসময় কারখানার কাজ বন্ধ রেখে কয়েকশ শ্রমিক কর্মবিরতিতে অংশ নেয়। তাদের দাবীগুলোর মধ্যে রয়েছে যাদের চাকরির মেয়াদ ১০ বছরের নিচে তাদের প্রত্যেক শ্রমিককে ৪ হাজার টাকা বেতন বাড়ানো, নতুন যোগদানের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন বেতন ৭৫০০ টাকা নির্ধারণ করা, যথা সময়ে কর্মস্থল ত্যাগের সুযোগ দেওয়া, স্থানীয়দের যোগ্যতা অনুযায়ী কর্মসংস্থানে অগ্রাধিকার দেওয়া, দুরবর্তী শ্রমিকদের যাতায়াতের সুবিধার্থে পরিবহনের ব্যাবস্থা করা এবং দাবি আদায়কারী কোন শ্রমিককে অন্যায়ভাবে ছাটাই করা যাবে না।
শ্রমিকরা জানান, দীর্ঘ দিন ধরে তাদের বেতন-ভাতা বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে আসছিল মালিক কর্তৃপক্ষের কাছে। কয়েক বার আশ্বাস দিলেও মালিক পক্ষ তাদের দাবি মেনে নিচ্ছেন না। বছরে একজন শ্রমিকের বেতন বাড়ান মাত্র ১৫০ টাকা থেকে ১৭৫ টাকা। পিএইচপি’র মালিক সুফি মিজানুর রহমান একজন দানবীর ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত অথচ তার ফ্যাক্টরীগুলোতে শ্রমিকরা নির্যাতিত। শ্রমিকদেরকে শোষণ করছেন। খবর পেয়ে শিল্প পুলিশ ও সীতাকুণ্ড মডেল থানার পুলিশ কারখানা প্রাঙ্গণে আসেন।
কর্মবিরতি চলাকালে শ্রমিকদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন মোবারক হোসেন সুজন, জাবেদ হোসেন, ইলিয়াছ সানি, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, সেলিম উদ্দিন, আলাউদ্দিন, সুজাউদ্দিন সুমন, মোঃ দিদার প্রমূখ। এসময় মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ দেলোয়ার হোসেন আগামী ১ মাসের মধ্যে মালিক পক্ষের সাথে আলোচনা করে বিভিন্ন দাবি সমূহ মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা কাজে যোগদান করে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: