সিটি নির্বাচন : বিএনপি-জামায়াতের সমঝোতা হয়নি

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : দীর্ঘ দিন যাবত এক সঙ্গে রাজপথে সরকারবিরোধী আCityন্দোলন করে আসা ২০ দলীয় জোটের প্রধান দুই শরিক বিএনপি-জামায়াতের মধ্যে হঠাৎ করেই সমন্বয়হীনতা দেখা দিয়েছে। আসন্ন সিটি নির্বাচনের বিষয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে জামায়াতের সঙ্গে কোনো প্রকার যোগাযোগ রাখছে না বলেও জামায়াতের একাধিক সূত্রে জানা গেছে। ঢাকার দুই সিটিতে জামায়াত কোনো মেয়র প্রার্থী ঘোষণা করেনি। জামায়াতের প্রত্যাশা ছিল, কাউন্সিলর প্রার্থীর ক্ষেত্রে জামায়াতের সঙ্গে সমঝোতা করবে বিএনপি। কিন্তু, এসব বিষয়ে বিএনপি জামায়াতের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করেনি বলে জানা গেছে। গত শুক্রবার আদর্শ ঢাকা আন্দোলন ২০ দলের নামে কাউন্সিলর প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ করেছে। এবিষয়ে জানতে চাইলে জামায়াতের সিটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক ও দলটির কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য নূরুল ইসলাম জানিয়েছিলেন, এ তালিকার বিষয়ে তারা অবহিত নন এবং এ বিষয়ে তাদের সঙ্গে কেউ কোনো আলাপ-আলোচনা করেননি। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঢাকা সিটি উত্তর ও দক্ষিণে জামায়াত সমর্থিত অন্তত ৩০ জন কাউন্সিলর প্রার্থী জয়ের লক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। ২০ দলীয় জোটের কয়েকটি ছোট দলের নেতাকে বাসায় ডেকে নিয়ে তাদের সঙ্গে সিটি নির্বাচন বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কথা বলেছেন। গতকাল শুক্রবার বিকেলেও গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে জোটের কয়েকটি শরিক দলের নেতাদের নিয়ে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদসহ বিএনপির কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতাও উপস্থিত ছিলেন। ২০ দলের মধ্যে জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এনডিপির চেয়ারম্যান গোলাম মোর্তজাসহ আরো কয়েকটি দলের নেতা উপস্থিত ছিলেন। বিগত দিনে রাজপথে সরকারবিরোধী আন্দোলনে যাদেরকে দেশের কোথাও মাঠে নামতে দেখা যায়নি। এসব দলের নেতাকর্মীদের চেহারাও কেউ রাজপথে দেখতে পায়নি। তবে আন্দোলনে মাঠে না নামলেও তারা প্রতিদিন সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে বিবৃতি দিয়ে নিজেদের তৎপরতা জাহির করার চেষ্টা করেছেন। নির্বাচনী সমন্বয় সভায় বিএনপি তাদেরকে ডাকলেও উপস্থিত ছিলেন না জামায়াতের কোনো প্রতিনিধি। এবিষয়ে জানতে চাইলে, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান বলেন, ‘‘শুক্রবারের সভায় বিষয়টি আলোচনা হয়েছে। বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে, কিছুটা সমস্যা ছিল পরশু (বৃহস্পতিবার) জামায়াতের সঙ্গে আলোচনা করে সমস্যা দূর হয়েছে। সিটি নির্বাচন এবং প্রার্থী নিয়ে জামায়াতের সঙ্গে সমঝোতা হয়েছে।’’ তবে জামায়াতের একটি দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছেন যে, জামায়াতের সঙ্গে সিটি নির্বাচন নিয়ে বিএনপির কোনো বৈঠক হয়নি। অন্যদিকে শুক্রবার বিকেলে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের ২০ দলীয় জোটের নামে সিটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়েছে। কিন্তু এক্ষেত্রেও জামায়াতের বক্তব্য, এসব কমিটির বিষয়ে জামায়াতের সঙ্গে বিএনপি নেতারা কোনো কথাই বলেননি। সিটি নির্বাচন নিয়ে ২০ দলের নামে বিএনপি যেসব তালিকা বা কমিটি গঠন করছে এসব বিষয়ে জামায়াতকে কিছুই জানানো হয়নি বলেও অভিযোগ জামায়াতের। এদিকে, সিটি নির্বাচন কেন্দ্রিক বিএনপির পক্ষ থেকে জামায়াতের সঙ্গে কোনো প্রকার যোগাযোগ না রাখায় মাঠ পর্যায়ের জামায়াত নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছে। রাজধানীর জামায়াতের এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে এই প্রতিবেদককে বলেন, ‘‘আমাদের নেতাদের যখন ফাঁসি দেওয়া হয় তখন বিএনপি নেতারা বলে যে আমাদের সঙ্গে তাদের নির্বাচনী জোট। এখন সিটি নির্বাচন শুরু হয়েছে। এক সঙ্গে রাজপথে আন্দোলন-সংগ্রাম করলাম। আমাদের অনেক নিহত, আহত ও কারাগারে আটক আছে। কিন্তু সিটি নির্বাচন শুরু হয়েছে জামায়াতের সঙ্গে কোনো প্রকার যোগাযোগই রাখছে না বিএনপি। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জোটের কিছু এতিম দল নাকি জামায়াতের ব্যাপারে বিএনপিকে উল্টা-পাল্টা বুঝাচ্ছে। বিএনপি এখন তাদেরকে নিয়েই নির্বাচনে নেমেছে। এ নির্বাচনই শেষ নির্বাচন নয়। আমরাও দেখবো এসব এতিমদের নিয়ে বিএনপি কত দূর যেতে পারে। এসব বিষয়ে জানার জন্য বিএনপির একাধিক নেতার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তারা কথা বলতে রাজি হননি। সূত্র : শীর্ষ নিউজ ডটকম

Leave a Reply

%d bloggers like this: