সিঙ্গাপুরে জঙ্গি সন্দেহে বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগে ধীরগতি

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৭ ফেব্র“য়ারী: জঙ্গি সন্দেহে সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগে চলছে ধীরগতি। বাংলাদেশি শ্রমিকদের সিঙ্গাপুরে জঙ্গি কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার সন্দেহে ভিসা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে দেশটির সরকার। ঢাকার বেসরকারি নিয়োগদাতারা এই তথ্য জানিয়েছেন।malasia
সিঙ্গাপুর ভিসা না দেওয়া নিয়ে বাংলাদেশি শ্রমিকরা আগত দিনে আরো কঠিন অবস্থার মধ্যে পড়তে হবে এমন উদ্বেগ প্রকাশ করছেন নিয়োগদাতারা। সিঙ্গাপুরের কর্তৃপক্ষের সতর্কতা সম্পর্কে জানতে একটি সরকারি নোট প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয় প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নূরুল ইসলামের কাছে পাঠানো হয়েছে।
সিঙ্গাপুরের সরকারকে জানাতে হবে কেন তারা জঙ্গিদের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে বাংলাদেশি শ্রমিকদের নির্মাণ ও জাহাজ খাতে নিয়োগ দিচ্ছে না। সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত মাহবুব উজ জামাম বলেন, সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশি শ্রমিক নিয়োগে জঙ্গি ইস্যুটি কোনো প্রকার প্রভাব ফেলবে না। এটি একটি ভিন্ন ইস্যু আর এই ইস্যুটি বাংলাদেশি শ্রমিকদের নিয়োগে কোনো সমস্যা হবে না বলে তিনি শুক্রবার রাতে টেলিফোনে গণমাধ্যমকে জানান।
বিল্ডিং এন্ড কন্সট্রাকশন অথরিটির তত্ত্বাবধায়নে বাংলাদেশি শ্রমিকরা দক্ষতার সঙ্গে প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করেই সিঙ্গাপুরে যেতে হয়। বিল্ডিং এন্ড কন্সট্রাকশন অথরিটির একটি সাংবিধানিক বোর্ড রয়েছে বিদেশি শ্রমিক নিয়োগের জন্য। এটি সিঙ্গাপুর সরকারের ন্যাশনাল ডেভলপমেন্ট মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিচালিত ও নিয়ন্ত্রিত হয়। এই মন্ত্রণালয় দেশটির নির্মাণ ও অবকাঠামো খাতের তদারকি করে।
বাংলাদেশি শ্রমিকদের অন্যতম কর্মের গন্তব্য সিঙ্গাপুর। এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নূরল ইসলামের নেতৃত্বে বুধবার পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ঢাকা থেকে সিঙ্গাপুরে গেছেন।
১৯৭৮ সাল থেকে প্রায় ৬ লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অন্যতম ধনী রাষ্ট্র সিঙ্গাপুর গেছে। বিএমইটির তথ্য অনুযায়ী, জানুয়ারি মাসে মোট ৪ হাজার ৫২০ জন বাংলাদেশি শ্রমিক সিঙ্গাপুর গেছেন। আর ফেব্রুয়ারির ২২ তারিখ পর্যন্ত ২ হাজার ৬৬৩জন গিয়েছে। সিঙ্গাপুর ২০১৫ সালে ৫৫ হাজার ভিসা ইস্যু করেছে আর ২০১৩ সালে এই সংখ্যা ছিল ৬০ হাজার বলে বিএমইটির তথ্যে দেখা যায়।
বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুয়েটিং এজেন্সিস (বায়রা)’র একজন নেতা গণমাধ্যমকে জানান, বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক আমদানি কম করছে সিঙ্গাপুর। বায়রার এই নেতা আরো জানান, সিঙ্গাপুরের সরকার বাংলাদেশি শ্রমিকদের উপর করের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে। তাতে নিরুৎসাহিত করেছে বলেও তিনি জানান।
সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত জানান, বাংলাদেশের প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম ও সিঙ্গাপুরের মন্ত্রী লিম সিউই ছে বৃহস্পতিবার সিঙ্গাপুরে বৈঠকে করেছেন। বাংলাদেশের লেবার কাউন্সিলর আয়েশা সিদ্দিকা শেলি বলেন, দ্বি-পার্শ্বিক বৈঠকে জঙ্গিবাদের ইস্যুটি নিয়ে আলোচনা হয়নি। কারণ এটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিষয় প্রবাসী মন্ত্রণালয়ের নয়। বাংলাদেশি শ্রমিকদের ভিসার ক্ষেত্রে কোনো প্রভাব পড়বে না। জঙ্গি ইস্যুটি সিঙ্গাপুর সরকার তাদের বিদেশি শ্রমিক নিয়োগের নীতিতে কোনো পরিবর্তন আনবে না বলেও নিশ্চিত করেন শেলি।
বৈঠকে নুরুল ইসলাম বাংলাদেশি দক্ষ শ্রমিকদের জন্য নার্সিং , গৃহস্থলি, শুশ্রুষা ও হোটেল সার্ভিসের মতো খাত বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য উন্মুক্ত করার অনুরোধ জানান সিঙ্গাপুরের র্কর্তৃপক্ষকে। সিঙ্গাপুরের মন্ত্রী একই সঙ্গে যারা গৃহস্থলি ও শুশ্রুষায় দক্ষ তাদের প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন। বাংলাদেশি শ্রমিকদের কাজের বৈধতার মেয়াদ অন্তত ২ বছর যাতে দেওয়া হয় সেই দিকে বিবেচনা করার জন্য নুরুল ইসলাম সিঙ্গাপুরের মন্ত্রীকে অনুরোধ করেন। সিঙ্গাপুরের মন্ত্রী বাংলাদেশি শ্রমিকদের তাদের দেশে অবদানের জন্য প্রশংসা করেন।
উল্লেখ্য, ২০ জানুয়ারি সিঙ্গাপুরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গত বছরের ১৬ নভেম্বর থেকে ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ২৭ জন বাংলাদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করে। আল কায়দা ও আইএসের সঙ্গে তাদের সংশ্লিষ্টতা থাকার অভিযোগে তাদের মধ্যে ২৬ জনকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠিয়ে দিয়েছে বলে এক বিবৃতিতে জানায় দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সূত্র: নিউ এইজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*