সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপনায় হামলার টার্গেট

অজিত কুমার দাশ হিমু, কক্সবাজার : রাস্তায় যানবাহনে বোমাহামলা চলানোর Submarin cable ctj (WinCE)পাশাপাশি এবার নাশকতাকারীরা সাবমেরিন ক্যাবল (অপটিক্যাল ফাইবার) লাইন কেটে ফেলা ও স্থাপনায় হামলার টার্গেট নিয়েছে। সাবমেরিন ক্যাবলের সংযোগ কেটে দিয়ে এশিয়া, আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপের প্রায় ১৩টি দেশের ১৫টি ল্যান্ডিং পয়েন্টের সাথে বাংলাদেশের যোগাযোগ চিরতরে বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে তারা। নিরবচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সেবার খাত থেকে প্রায় ১২৩ কোটি টাকার আয় থেকেও বঞ্চিত করার গভীর ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে চক্রটি। ইতোমধ্যে সাবমেরিন ক্যাবল লাইন কেটে ফেলার বড় ধরনের একটি পরিকল্পনা নস্যাৎ করে নাশকতাকারীদের মধ্যে ৩ জনকে আটকও করেছে কক্সবাজারের চকরিয়া থানা পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত অন্তত ৩৫ চক্রান্তকারীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সাবমেরিন ক্যাবল লাইন সুরক্ষার জন্য পুলিশ, বিজিবি ও আনসার সদস্যদের তৎপরতা বৃদ্ধি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ। সুত্র মতে, বাংলাদেশে নিরবচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সেবা দিতে ২০০৬ সালের ২১ মে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া কক্সবাজারের ঝিলংজায় সাবমেরিন ক্যাবল ল্যান্ডিং স্টেশনটি উদ্বোধন করেন। এ স্টেশনটির মাধ্যমে বর্তমানে এশিয়া, আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে বাংলাদেশ। প্রায় বিশ হাজার কিলোমিটার দীর্ঘ এ ক্যাবলটির সঙ্গে বাংলাদেশসহ ১৬টি দেশের টেলিকম কোম্পানি সংযুক্ত আছে। সাবমেরিন ক্যাবলের বাংলাদেশ অংশটির ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছেন বিএসসিসিএল। পুলিশ ও বিভিন্ন সুত্রে জানা গেছে, গত দেড় সপ্তাহ পূর্বে ঝিলংজায় অবস্থিত সাবমেরিন ক্যাবল ল্যান্ডিং স্টেশন কানেকশনের ১৬টি দেশের সাথে বাংলাদেশের সংযোগ বিচ্ছিন্নের টার্গেট করে নাশকতাকারী চক্র।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*