সাদ্দামকে ইরাক শাসন করতে দেওয়া উচিত ছিল

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : ডিসেম্বর ১৭, ২০১৬
সাদ্দামকে ইরাক শাসন করতে দেওয়া উচিত ছিল
২০০৩ সালে মার্কিন নেতৃত্বাধীন বাহিনীর হাতে আটক হন ইরাকের ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হোসেন। পরে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার (সিআইএ) কর্মকর্তা জন নিক্সন। এই নিক্সন তাঁর প্রকাশিতব্য বইয়ে লিখেছেন, সাদ্দামকে ইরাক শাসন করতে দেওয়া উচিত ছিল।
মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। সাদ্দাম হোসেনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের দশম বার্ষিকী আগামী ৩০ ডিসেম্বর। ওই দিন প্রকাশ হতে যাচ্ছে নিক্সনের লেখা ‘ডিব্রিফিং দ্য প্রেসিডেন্ট: দ্য ইন্টারোগেশন অব সাদ্দাম হোসেন’ নামের বইটি। সাদ্দামকে নিক্সনের জিজ্ঞাসাবাদের বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে বইটিতে। বইটির একটি অংশ প্রকাশিত হয়েছে টাইম সাময়িকীর ওয়েবসাইটে।
নিক্সন তাঁর বইয়ে বলেছেন, আমি যখন সাদ্দামকে জিজ্ঞাসাবাদ করি, তিনি আমাকে বলেন, ‘ইরাকে তোমরা ব্যর্থ হতে যাচ্ছ। ইরাক শাসন করা অত সহজ নয়—সেটাই তোমরা বুঝতে পারবে।’ নিক্সন লিখেছেন, সাদ্দামের এ কথায় উত্তরে আমার কৌতূহল হয়। কেন এভাবে ভাবছেন—জানতে চাইলে সাদ্দাম বলেন, ‘ইরাকে তোমরা ব্যর্থ হতে যাচ্ছ, কারণ তোমরা ইরাকের ইতিহাস, ভাষা ও আরব জাতির মানসিকতা জানো না।’
নিক্সন মনে করেন, সাদ্দাম হোসেনের একটি যুক্তি ছিল যে ‘বহু জাতি-গোষ্ঠীর দেশ ইরাক’ পরিচালনা এবং সুন্নি উগ্রবাদ ও সাদ্দামের শত্রু শিয়া নেতৃত্বাধীন ইরানের ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণে রাখতে তাঁর মতো একজন কঠোর শাসকের প্রয়োজন ছিল।
নিক্সন লিখেছেন, ‘সাদ্দামের শাসনামলে অন্য অনেক ভুলের মধ্যে ছিল তাঁর নেতৃত্বের পন্থা ও নিষ্ঠুরতার প্রতি ঝোঁক। তবে তিনি যখন মনে করতেন, তাঁর নেতৃত্বের ভিত্তি হুমকির মুখে তখন তিনি নির্মম সিদ্ধান্ত নিতেন। জন অসন্তোষের কারণে আন্দোলনের মুখে তাঁর পতন ঘটবে—নিশ্চিতভাবেই এমন আশঙ্কা থেকে অনেক দূরে ছিলেন তিনি। একইভাবে তাঁর দমনমূলক শাসনের অধীনে আইএসের মতো জঙ্গি সংগঠনের সফলতা পাওয়াও অসম্ভব ছিল।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বিশ্বাস করেন, ২০০৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ইরাক আক্রমণ করা উচিত হয়নি। ওই যুদ্ধ ও যুদ্ধ-পরবর্তী মধ্যপ্রাচ্যের বর্তমান বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সম্পর্কে আগাম ধারণা ছিল। ওই যুদ্ধ সাম্প্রদায়িকতার জট খুলে দেয়। বর্তমানে ইরাক ও সিরিয়া উভয় দেশই সাম্প্রদায়িকতার আস্তানায় পরিণত হয়েছে।

নিক্সন লিখেছেন, ‘যদিও সামগ্রিকভাবে আমার কাছে সাদ্দাম অপছন্দের ব্যক্তি ছিলেন, তবে তিনি কীভাবে ইরাক জাতিকে শাসন করতে সক্ষম হন—তা ভেবে তাঁর প্রতি আমার শ্রদ্ধা জন্মে।’ নিক্সন বলেন, সাদ্দাম এক সময় আমাকে বলেছিলেন, ‘সেখানে (ইরাকে) এক সময় শুধু ঝগড়া ও বাদানুবাদ ছিল। আমি এর অবসান ঘটাই এবং জনগণের মধ্যে ঐকমত্যের একটা জায়গা তৈরি করি।’

 

Leave a Reply

%d bloggers like this: