সাতকানিয়ার নির্বাচনে নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় একটি প্রতিবাদী ভোট দিন: আবু সুফিয়ান

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৯ অক্টোবর ২০১৯ ইংরেজী, বুধবার: দক্ষিণ জেলা বিএনপির নবনির্বাচিত আহবায়ক আবু সুফিয়ান বলেছেন, আওয়ামলীগ ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যরাতের মহাডাকাতির ভোটের মাধ্যমে দেশের মানুষের ভোটাধিকার হরণ করেছে। তারা দেশের নির্বাচনী ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। তাই আগামী ১৪ অক্টোবর সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাচনে মানুষের নাগরিক অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য সবাইকে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে একটি প্রতিবাদী ভোট দিতে হবে।

এই ভোট হবে আওয়ামীলীগের দু:শাসনের বিরুদ্ধে ও বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির সমর্থন জানানোর ভোট। ভোটের দিন যাতে কোন সন্ত্রাসী ও অপশক্তি নাগরিক অধিকার হরণ করতে না পারে সেইজন্য সকলকে সচেতন থাকতে হবে। যদি ১৪ অক্টোবর সাতকানিয়ায় ৩০ ডিসেম্বরের মত নির্বাচন করা হয় তাহলে সে নির্বাচন চট্টগ্রামবাসী মেনে নেবে না। এর বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। তিনি গতকাল সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত ধানের শীষের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বশির আহমেদের সমর্থনে কেরানীহাটে এক পথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। তিনি বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীদের নিয়ে দুপুর থেকে গণসংযোগ শুরু করে কাঞ্চনা ফুলতলা বাজার, জোট পুকুরীয়া বাজার, দেওদীঘি, সোনাকানিয়া, মৌলভীর দোকান, মাস্টারহাট, কালিয়াইশ, বাজালিয়া হয়ে কেরানীহাট মোড়ে এসে পথসভায় যোগ দেন। এতে আবু সুফিয়ান আরো বলেন, ভিন্নমতের কারণে বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদের পৈশাষিক কায়দায় হত্যা করে আইনের শাসনের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছে ছাত্রলীগ। মধ্যযুগীয় বর্বরতায় এই হত্যার বিষয়টি খুবই উদ্বেগজনক। এমন অপরাধ কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। এটা মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের শামিল। সরকারের এক কেন্দ্রিক শাসন ব্যবস্থা দেশকে চূড়ান্ত ফ্যাসিবাদের দিকে নিয়ে গেছে। তিনি উপজেলা নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থীদের বিজয়ী করে আওয়ামী দু:শাসনের জবাব দেয়ার আহবান জানান। সাতকানিয়া উপজেলা সভাপতি অধ্যাপক শেখ মো. মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমানের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আলী আব্বাস, সদস্য সচিব মোস্তাক আহমেদ খান, নগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার হোসেন লিপু, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্য বদরুল খায়ের চৌধুরী, হাজী মো. রফিক, নবাব মিয়া, জসিম উদ্দিন আবদুল্লা, মোস্তাফিজুর রহমান, অধ্যাপক এহসান মওলা, বিএনপি নেতা এস এম গিয়াস উদ্দিন, শরীফুল আলম, গিয়াস উদ্দিন ভূঁইয়া, দক্ষিণ জেলা যুবদলের সহসভাপতি শেফায়েত উল্লাহ চক্ষু, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মোজাম্মেল হক, দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শহীদুল আলম শহীদ, সাধারণ সম্পাদক মো. মহসিন, দক্ষিণ জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক জান্নাতুল নাঈম রিকু, সাতকানিয়া মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন মুন্নি, বিএনপি নেতা এম এ রহিম, মো. হাসান, আবু তালেব, মিন্টু, মো. আরিফ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*