সর্বস্তরের বাংলা ভাষার প্রচলন চাই: এস.এম. শামসুল আলম চৌধুরী

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইংরেজী, মঙ্গলবার: বাংলাদেশ শিক্ষা পর্যবেক্ষণ কাউন্সিল চট্টগ্রাম কর্তৃক আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা এস.এম. শামসুল আলম চৌধুরী বলেন সর্বস্তরের বাংলা ভাষা একনো বাস্তবায়ন হয়নি। ভাষা শহিদদের প্রতি শৃদ্ধা জানায়ে আমাদেরকে সর্বস্তরের বাংলা ভাষার প্রচলন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। বাংলাদেশ শিক্ষা পর্যবেক্ষণ কাউন্সিল চট্টগ্রাম মহানগর শাখার উদ্যোগে আজ সকাল ১১ টায় নগরীর লাভ লেইনস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে সংগঠনের উপদেষ্টা কাজী সমিতি চট্টগ্রাম মহানগর শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব কাজী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম হেলালির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান ও বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে বাংলাদেশ শিক্ষা পর্যবেক্ষণ কাউন্সিল এর চেয়ারম্যান লেখক ও গবেষক মাহমুদুল হক আনসারী, উপদেষ্টা কর আইনজীবি মোহাম্মদ আমির হোসাইন, বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ ফাউন্ডেশনের মহানগর সহ-সভাপতি মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন চৌধুরী, বাংলাদেশ শিক্ষা পর্যবেক্ষণ কাউন্সিল এর মহাসচিব সাংবাদিক সরোয়ার হোসেন চৌধুরী মানিক, বাংলাদেশ আওয়ামী পর্যটনলীগের চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সভাপতি আ.জ.ম. শামসুল করিম লাভলু, এশিয়া ছিন্নমূল মানবাধিকার বাস্তবায়ন ফাউন্ডেশনের চট্টগ্রাম জেলা সভাপতি মোহাম্মদ মুসা খান, ধূমপান বিরোধী আন্দোলনের সভাপতি কে.এম. আলী হাসান, বাংলাদেশ যাত্রীকল্যাণ ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম এর অর্থ-সম্পাদক নুরুল ইসলাম বাচ্চু, সমাজ-সেবক মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, প্রচার সম্পাদক এম.এইচ. হোসাইন প্রমুখ। প্রধান অতিথি মুক্তিযোদ্ধা শামসুল ইসলাম চৌধুরী আরো বলেন, ৫২ এর ভাষা আন্দোলন না হলে আমরা একাত্তর পেতাম না। ভাষা আন্দোলন থেকে মুক্তিযোদ্ধের আন্দোলনের সূচনা হয়। আজ আমরা বাংলা ভাষার মাধ্যমে পৃথিবীতে গর্বিত জাতি। আজ পৃথিবী ব্যাপি আন্তর্জাতিক ভাবে বাংলা ভাষা তথা একুশে ফেব্রুয়ারি ভাষা দিবস পালিত হচ্ছে। এজন্য বর্তমান সরকার বাংলা ভাষা প্রতিষ্ঠার জন্য দেশ-বিদেশের যে কূটনৈতিক চেষ্টা চালাচ্ছে তা প্রশংসার দাবি রাখে। তিনি আরো বলেন দুঃখ জনক হলেও একথা সত্য যে, মুখে আমরা বাংলা ভাষার কথা বললেও এখনো আমার মায়ের ভাষা মর্যাদার আসনে প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়নি। ভাষা দিবসের সাথে অবশ্যই মাতৃভাষার চর্চা বাস্তবায়ন সবকানে দেখতে চাই। সভাশেষে মহান ভাষা দিবসের শহিদদের আত্মার মাগফিরাত ও দেশ জাতির সার্বিক কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে সভা সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: