সরকারের পায়ের নিচে মাটি নেই: খন্দকার মাহবুব হোসেন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৪ অক্টোবর ২০১৯ ইংরেজী, শুক্রবার: অবৈধ সরকারকে ভয় করার কিছু নেই মন্তব্য করে বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, তাদের পায়ের নিচে মাটি নেই। তারা দোদুল্যমান অবস্থায় আছে। যেকোনো মুহূর্তে তাদের ধাক্কা দিলেই পতন হবে। তিনি বলেন, এই সরকার অবৈধ। পাতানো নির্বাচনের মাধ্যমে তারা ক্ষমতায় এসেছে। তাদের উচিত নিরপেক্ষ সরকারের মাধ্যমে নির্বাচন করা। শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অনতিবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে প্রতীকী অবস্থান কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম নামক একটি সংগঠন এ কর্মসূচির আয়োজন করে।


খন্দকার মাহবুব বলেন, ওবায়দুল কাদের বলেছেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে নাকি অপরাধীদের তালিকা আছে। তালিকা রেখে লাভ নেই। আমরা দেখতে চাই কারা সেই অপরাধী। তাদেরকে গ্রেফতার করে বিচারের কাঠগড়ায় নিয়ে আসতে হবে। আপনি বারবার ভালো ভালো কথা বলবেন আর চমক সৃষ্টি করবেন, সেই চমক সৃষ্টির দিন চলে গেছে।
সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমরা অনেক দেখেছি, আমাদের ধৈর্য হারিয়েছে। এখনও সময় আছে পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন। হাইকোর্ট নিয়ে খেলতে যাবেন না। বিচার বিভাগকে নিয়ে খেলতে যাবেন না। হাইকোর্টের বিচার যদি থাকে সংবিধান অনুযায়ী বিচার যদি করতে পারে, তাহলে হাইকোর্টের অস্তিত্ব থাকবে। নতুবা অস্তিত্ব থাকবে কিনা সেটা নিয়ে আমরা সন্দিহান।
বিএনপির এই সিনিয়র আইনজীবী বলেন, সংবিধানে হাইকোর্টকে যে অধিকার দেয়া হয়েছে, সেখানে যদি আইনের শাসন না থাকে তাহলে সেই হাইকোর্ট থাকার অস্তিত্ব নেই। আমরা শপথ নিয়ে এসেছি, বাংলাদেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করব। আমি হাইকোর্ট এবং সুপ্রিম কোর্টের মাননীয় বিচারপতিদের সতর্ক করে দিয়ে বলতে চাই, দেশে আইনের শাসন যদি না থাকে তাহলে আপনাদের ও শাসন থাকবে না, আপনাদের অস্তিত্ব থাকবে না। জনগণ আপনাদেরকে মাঠে টেনে নিয়ে আসবে।
আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এম জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় প্রতীকী অবস্থান কর্মসূচিতে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী, যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল,নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, প্রিন্সিপাল শাহ মোহাম্মদ নেসারুল হক, তাঁতী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*