সন্ত্রাসী হামলায় জড়িতদের খুঁজে বের করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৩ জুলাই: রাজধানীর গুলশানে আর্টিজান রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসী হামলায় জড়িতদের খুঁজে বের করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।4
রবিবার গণভবনে বাংলাদেশের অন্যতম উন্নয়ন সহযোগী দেশ জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সেইজি কিহারা কিহারার সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম এতথ্য জানিয়েছেন।
বৈঠকের পর প্রেসসচিব সাংবাদিকদের বলেন, গুলশানের রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনাকে ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ অভিহিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তাদের শেকড় খুঁজে বের করা হবে। কারা তাদের অস্ত্র-বিস্ফোরক দিচ্ছে তাও খুঁজে বের করা হবে।
গত শুক্রবার রাতে গুলশান ২ নম্বরের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালায় একদল অস্ত্রধারী জঙ্গি, জিম্মি হন দেশি বিদেশি অন্তত ৩৩ জন।
প্রায় ১২ ঘণ্টা পর কমান্ডো অভিযান চালিয়ে ওই রেস্তোরাঁর নিয়ন্ত্রণ নেয় সশস্ত্রবাহিনী। ১৩ জন জিম্মিকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও ২০ জনের লাশ পাওয়া যায় জবাই করা অবস্থায়।
নিহতদের মধ্যে নয়জন ইতালির, সাতজন জাপানি ও একজন ভারতের নাগরিক। বাকি তিনজন বাংলাদেশি, যাদের মধ্যে একজনের যুক্তরাষ্ট্রেরও নাগরিকত্ব ছিল।
ধর্ম যাজকসহ সাম্প্রতিক বিভিন্ন হত্যা-হামলার ঘটনা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে বলেন, যারা এসব হামলা করেছে, তাদের অনেককেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে, আগে ধর্ম যাজকরা তাদের লক্ষ্য ছিল।
জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের সময় ফ্রান্স, বেলজিয়াম, ভারত ও জাপানে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনাও তুলে ধরেন শেখ হাসিনা।
প্রেস সচিব বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী- উভয়েই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করার কথা বলেছেন।
সন্ত্রাসী হামলায় নিহত জাপানিদের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে হস্তান্তর করা হবে বলেও দেশটির পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে জানান শেখ হাসিনা।
প্রেসসচিব বলেন, সন্ত্রাসী হামলায় হতাহতের ঘটনায় জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। মৃতদেহগুলো পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৩ জুলাই: রাজধানীর গুলশানে আর্টিজান রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসী হামলায় জড়িতদের খুঁজে বের করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
রবিবার গণভবনে বাংলাদেশের অন্যতম উন্নয়ন সহযোগী দেশ জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সেইজি কিহারা কিহারার সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম এতথ্য জানিয়েছেন।
বৈঠকের পর প্রেসসচিব সাংবাদিকদের বলেন, গুলশানের রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনাকে ‘অনাকাঙ্ক্ষিত’ অভিহিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তাদের শেকড় খুঁজে বের করা হবে। কারা তাদের অস্ত্র-বিস্ফোরক দিচ্ছে তাও খুঁজে বের করা হবে।
গত শুক্রবার রাতে গুলশান ২ নম্বরের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালায় একদল অস্ত্রধারী জঙ্গি, জিম্মি হন দেশি বিদেশি অন্তত ৩৩ জন।
প্রায় ১২ ঘণ্টা পর কমান্ডো অভিযান চালিয়ে ওই রেস্তোরাঁর নিয়ন্ত্রণ নেয় সশস্ত্রবাহিনী। ১৩ জন জিম্মিকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও ২০ জনের লাশ পাওয়া যায় জবাই করা অবস্থায়।
নিহতদের মধ্যে নয়জন ইতালির, সাতজন জাপানি ও একজন ভারতের নাগরিক। বাকি তিনজন বাংলাদেশি, যাদের মধ্যে একজনের যুক্তরাষ্ট্রেরও নাগরিকত্ব ছিল।
ধর্ম যাজকসহ সাম্প্রতিক বিভিন্ন হত্যা-হামলার ঘটনা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে বলেন, যারা এসব হামলা করেছে, তাদের অনেককেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে, আগে ধর্ম যাজকরা তাদের লক্ষ্য ছিল।
জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের সময় ফ্রান্স, বেলজিয়াম, ভারত ও জাপানে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনাও তুলে ধরেন শেখ হাসিনা।
প্রেস সচিব বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী- উভয়েই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করার কথা বলেছেন।
সন্ত্রাসী হামলায় নিহত জাপানিদের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে হস্তান্তর করা হবে বলেও দেশটির পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে জানান শেখ হাসিনা।
প্রেসসচিব বলেন, সন্ত্রাসী হামলায় হতাহতের ঘটনায় জাপানের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। মৃতদেহগুলো পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*