সন্তোখ সিং বুমরা ভারতীয় পেসার জাসপ্রীত বুমরার দাদু

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৫ জুলাই ২০১৭, বুধবার: সন্তোখ সিং বুমরা ভারতীয় পেসার জাসপ্রীত বুমরার দাদু। কিন্তু ৮৪ বছর বয়সী সন্তোখ নাতিকে দেখেন না সে অনেক বছর। পারিবারিক সমস্যার কারণে ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম তারকা হয়ে ওঠা নিজের নাতির সঙ্গে দেখা না হওয়ার বেদনা তিনি ভোলেন টেলিভিশনে তাঁর খেলা দেখে। দারুণ গর্বও অনুভব করেন। খুব করেই চান মৃত্যুর আগে অন্তত একটিবার যেন নাতি জাসপ্রীতের সঙ্গে তাঁর দেখা হয়, মাথায় হাত বুলিয়ে আশীর্বাদ করতে পারেন তাঁকে।
উত্তরাখন্ডে বাস করেন সন্তোখ। আর্থিক অবস্থা যে খুব ভালো, সে বলা যাবে না। সেখানে একটি ভাড়া বাড়িতে থাকেন। টেলিভিশনে নাতির খেলা দেখেন আর কায়মনোবাক্যে প্রার্থনা করেন, দেখা হোক, কথা হোক তাঁর নাতির সঙ্গে।
সন্তোখ মূলত ছিলেন গুজরাটের ব্যবসায়ী। বেশ ভালোই ছিল তাঁদের পারিবারিক ব্যবসায়। জাসপ্রীত বুমরার বাবা জাসবীর বুমরাও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতেন সেই ব্যবসায়। ২০০১ সালে অকালমৃত্যু হয় জাসবীরের। সন্তোখ বলেন, ‘আমার ছেলের মৃত্যু আমার ভাগ্যবিপর্যয় ঘটায়। ব্যবসা মার খেতে শুরু করে। ২০০৬ সালে এই ব্যবসা ভয়াবহ অবস্থার মধ্যে পড়ে যায়। শেষ পর্যন্ত আমি সবকিছু গুটিয়ে উত্তরাখন্ড চলে আসি। কিন্তু আমার নাতি ওর মায়ের সঙ্গে থেকে যায় আহমেদাবাদেই।’
সন্তোখের কণ্ঠে নাতির জন্য রীতিমতো আকুতিই ঝরেছে, ‘আমি আমার নাতির সঙ্গে দেখা করতে চাই। জাসপ্রীতের মা ব্যাপারটা পছন্দ করে না। সে আমার থেকে তার ছেলেকে নিয়ে দূর থাকতে চায়। আমি আমার নাতির সঙ্গে দেখা করার, কথা বলার অনেক চেষ্টা করেছি। কিন্তু পারিনি। আপনারা (সাংবাদিকেরা) কি আমাকে এ ব্যাপারে একটু সাহায্য করতে পারেন?’ সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*