শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত অপশক্তির কাছে মাথানত করবো না: নুরুল আমিন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৮ ইংরেজী, শুক্রবার: চট্টগ্রাম-১ সংসদীয় আসনে বিএনপি, ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মনোনিত ধানের শীর্ষ প্রতীকের প্রার্থী নুরুল আমিন বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচার শুরুর পর থেকে মিরসরাই উপজেলা থেকে প্রায় পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অন্যদিকে পুলিশের মদদে সরকারদলীয় সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্য অস্ত্রের মহড়া দিয়ে মিরসরাইয়ে ত্রাসের রাজত্ব কায়েক করেছে। আমাকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে নানা অপকৌশল প্রয়োগ করছে। আমি কথা দিচ্ছি শরীরে শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত কোন অপশক্তির কাছে মাথানত করবো না। তিনি আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলন ধানের শীষের প্রার্থী নুরুল আমিন বলেন, আজ সকালে আমি আমার নির্বচনী এলাকার এজেন্টদের সাথে দেখা করতে গেলে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা আমার ওপর তিন দফা হামলা চালায়। তারা প্রথমে মুহুরী প্রজেক্ট বাজারে, তারপর মরগং ও সদরমা দীঘি এলাকায় হামলা চালানো হয়। হামলায় আমার দুইজন কর্মী গুরুতর আহত হয়। আমাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। আমি জনসাধারণের সহযোগিতায় ও আল্লাহর রহমতে কোর রকমে প্রাণে বেঁচে যাই।
বিএনপি প্রার্থী নুরুল আমিন বলেন, হামলা-মামলা ও গ্রেফতার আতঙ্কে মিরসরাইয়ে এখন ভীতি ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। আমার নির্বাচনী এলাকায় বাড়ী বাড়ী তল্লাশী চালিয়ে নেতাকর্মীদের না পেয়ে ঘরের মহিলাদের সাথে খারাপ ব্যবহার করা হচ্ছে। ভোট কেন্দ্রে না যাওয়ার জন্য ভয়ভীতি প্রদান করা হচ্ছে। প্রতিনিয়ত হুমকির কারণে মিরসরাইয়ের হাজার হাজার নেতাকর্মী এলাকা ছাড়া। অনেক গ্রাম যেখানে পুরুষ শূন্য হয়ে পড়েছে।
সারাদেশের ন্যায় মিরসরাইতেও জনমতের তোয়াক্কা না করে দলীয় প্রশাসন ও দলীয় সশস্ত্র ক্যাডারদের প্রত্যক্ষ সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের কারণে একটি তামাসার নির্বাচনের আয়োজন চলছে জানিয়ে সাবেক এই উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, আমি আশা করি মিরসরাইবাসী আমাকে অতীতে ভোট দিয়ে যেভাবে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছে সেভাবেই আগামী ৩০ তারিখ ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দিয়ে তাদের মৌলিক অধিকার আদায় করে নিবে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, মিরসরাই উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মাঈন উদ্দিন মাহমুদ, উত্তর জেলা স্বেচ্ছসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সরওয়ার উদ্দিন সেলিম, বিএনপি নেতা শাহীনুল ইসরাম, স্বপন, মঞ্জুরুল হক সাজু, সোহান, রসফুদ্দিন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*