শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন বিএসইসি চেয়ারম্যান

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১১ এপ্রিল ২০১৯ ইংরেজী, বৃহস্পতিবার: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেছেন পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন। বুধবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে তেজগাঁওস্থ কার্যালয়ে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন তিনি। একটি বিদেশি কোম্পানির বিনিয়োগ বিষয়ে আলোচনা করতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ডাকা এক বৈঠকে অংশ নিতে যান খায়রুল হোসেন। সেখানে গিয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতে কী কী বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে তা বিস্তারিত জানা সম্ভব হয়নি। বিএসইসির শীর্ষ এক কর্মকর্তা জানান, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শুধু বিএসইসির চেয়ারম্যান বৈঠক করেছেন। বৈঠকে চলতি দরপতন বিষয়ে গত মঙ্গলবার শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টরা যেসব কারণ উল্লেখ করেছিলেন এবং সুপারিশ জানিয়েছিলেন, সেগুলো প্রধানমন্ত্রীর নজরে আনার কথা। টানা দরপতন ১১তম সপ্তাহে গড়ানোর পর নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসিসহ সংশ্নিষ্ট পর্যায় থেকে পতন রুখতে নানা প্রচেষ্টা চললেও কোনো কাজ হচ্ছে না। গতকাল বুধবারও দেশের দুই শেয়ারবাজারে দরপতন হয়েছে। নানা প্রচেষ্টার পরও দরপতন রুখতে শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে দফায় দফায় আনুষ্ঠানিক বা অনানুষ্ঠানিক বৈঠক করে। শেয়ার বিক্রি বন্ধ করে বরং কেনায় মনোযোগী হতে অনুরোধ করছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে সংস্থার চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন গতকাল বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে যান। পরে শেখ হাসিনার সঙ্গে তিনি দেখা করেন। জানা গেছে, বিদেশি বিনিয়োগকারীরা অনেক দিন ধরে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার পর্যবেক্ষণ করছেন, যারা সূচকের উঠানামা নিয়ে অবগত। তারা সূচকের উঠানামায় চিন্তিত না। যাতে এ বিষয়ে তারা কোনকিছু জানতে চাননি। ইনভেস্টকর্প নামে কোম্পানিটি বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী। যাদের একটি প্রতিনিধি দল গত ৮ এপ্রিল বাংলাদেশে এসেছেন। বুধবার সেই প্রতিনিধি দলকে বাংলাদেশে বিনিয়োগের সার্বিক বিষয়ে উপস্থাপনের মাধ্যমে তথ্য তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। প্রতিনিধি দলে ছিলেন ইনভেস্টকর্প এর নির্বাহী চেয়ারম্যান এইচ ই মোহাম্মদ আলরাদি, সহযোগী প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হাজেম বেন গাছেম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও এশিয়া প্রধান তিমোথি মাত্তার, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও গ্লোবাল কমিউনিকেশনের প্রধান ফাইরাজ এই এমিনে ও উপদেষ্টা ইলথেম কবির। বিএসইসির কমিশনার অধ্যাপক ড. স্বপন কুমার বালা। প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে আইপিও প্রক্রিয়া, স্মল ক্যাপিটাল ইত্যাদি বিষয়ে জানতে চায়। এর আলোকে বিএসইসির চেয়ারম্যান তাদেরকে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারের সার্বিক বিষয়ে অবগত করেন। আর আগামী এক মাসের মধ্যে স্মল ক্যাপিটাল চালু হবে বলেও তাদেরকে জানিয়েছেন। বৈঠকে উপস্থিত ওই শীর্ষ কর্মকর্তা বলেন, ইনভেস্টকর্প এর ২৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ফান্ড রয়েছে। যারা এরইমধ্যে আমেরিকা ও চায়নাসহ বিভিন্ন দেশে বিনিয়োগ করেছে। তারা বাংলাদেশে বিনিয়োগে করতে চায়। এছাড়া শেয়ারবাজার থেকে আকর্ষণীয় রিটার্নের কারণে তারা বিনিয়োগে বেশি আগ্রহী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*