শীতে চোখের যতœ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ ডিসেম্বর, সোমবার : শীতের সময় ত্বক আর চুলের যতেœ অনেকেই তৎপর থাকেন। শীতের সময় ত্বক আর চুলের পাশাপাশি চোখের জন্য বাড়তি যতœ নেওয়া দরকার। শীতের সময় চোখের পুরোপুরি যতœ না নিলে দৃশীতে চোখের যতœdownload
নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ ডিসেম্বর, সোমবার : শীতের সময় ত্বক আর চুলের যতেœ অনেকেই তৎপর থাকেন। শীতের সময় ত্বক আর চুলের পাশাপাশি চোখের জন্য বাড়তি যতœ নেওয়া দরকার। শীতের সময় চোখের পুরোপুরি যতœ না নিলে দৃষ্টিশক্তির ক্ষতি হয়। শীতে চোখের বাড়তি যতœ হিসেবে যা করবেন: চশমা ব্যবহার করুন: যখন বাইরে যাবেন, অবশ্যই চোখে চশমা ব্যবহার করুন। এ সময় বাতাসে ধূলিকণা বেশি থাকে। সরাসরি সূর্যের আলো যাতে চোখে না পড়ে, এ জন্য পুরো চোখ ঢেকে থাকে—এমন ফ্রেমের চশমা ব্যবহার করতে পারেন। শরীর আর্দ্র রাখুন: শীতের সময় শরীর আর্দ্র রাখতে প্রচুর তরলজাতীয় খাবার খান। শুধু পানি পানের পরিবর্তে গরম গরম স্যুপ খান, যা শরীর উষ্ণ ও আর্দ্র রাখতে সাহায্য করবে। এতে চোখের শুষ্কভাব কমবে।
ওমেগা-৩ যুক্ত খাবার খান: ওমেগা-৩ যুক্ত মাছ বেশি করে খান। এতে চোখে অশ্রু বেশি তৈরি হবে এবং চোখ শুষ্ক হবে না।
ফুলকপি: চোখের যতেœ ফুলকপির কোনো তুলনা হয় না। ফুলকপিতে থাকা ভিটামিন ‘এ’ চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। চোখ সুস্থ রাখতে বেশি করে ফুলকপি খাওয়া উচিত।

মিষ্টিকুমড়া: প্রাকৃতিক পুষ্টি উপাদানের ‘পাওয়ার হাউস’ বলা যেতে পারে মিষ্টিকুমড়াকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিয়মিত খাদ্যতালিকায় মিষ্টিকুমড়া রাখলে কেবল চোখ ও ত্বক সুস্থ থাকে না, এড়ানো যায় অনেক অসুখ-বিসুখ। চোখের ব্যায়াম: চোখের উপযোগী ব্যায়াম নিয়মিত করা উচিত। মাথা সোজা রেখে চোখ হাতের ডান থেকে বাঁয়ে ও বাঁ থেকে ডানে ১০ বার ঘোরাতে হবে। প্রতিদিন সম্ভব না হলে সপ্তাহে অন্তত তিন দিন করা যেতে পারে। চোখের ক্লান্তি দূর: চোখের ক্লান্তি দূর করতে প্রকৃতির সবুজ রঙের জুড়ি নেই। একটু সময় পেলে সবুজে ঘেরা কোথাও থেকে ঘুরে আসুন। মনও ভালো থাকবে, চোখও আরাম পাবে।
তথ্যসূত্র: জিনিউজ।
শীতে চোখের যতœ
নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ ডিসেম্বর, সোমবার : শীতের সময় ত্বক আর চুলের যতেœ অনেকেই তৎপর থাকেন। শীতের সময় ত্বক আর চুলের পাশাপাশি চোখের জন্য বাড়তি যতœ নেওয়া দরকার। শীতের সময় চোখের পুরোপুরি যতœ না নিলে দৃষ্টিশক্তির ক্ষতি হয়। শীতে চোখের বাড়তি যতœ হিসেবে যা করবেন: চশমা ব্যবহার করুন: যখন বাইরে যাবেন, অবশ্যই চোখে চশমা ব্যবহার করুন। এ সময় বাতাসে ধূলিকণা বেশি থাকে। সরাসরি সূর্যের আলো যাতে চোখে না পড়ে, এ জন্য পুরো চোখ ঢেকে থাকে—এমন ফ্রেমের চশমা ব্যবহার করতে পারেন। শরীর আর্দ্র রাখুন: শীতের সময় শরীর আর্দ্র রাখতে প্রচুর তরলজাতীয় খাবার খান। শুধু পানি পানের পরিবর্তে গরম গরম স্যুপ খান, যা শরীর উষ্ণ ও আর্দ্র রাখতে সাহায্য করবে। এতে চোখের শুষ্কভাব কমবে।
ওমেগা-৩ যুক্ত খাবার খান: ওমেগা-৩ যুক্ত মাছ বেশি করে খান। এতে চোখে অশ্রু বেশি তৈরি হবে এবং চোখ শুষ্ক হবে না।
ফুলকপি: চোখের যতেœ ফুলকপির কোনো তুলনা হয় না। ফুলকপিতে থাকা ভিটামিন ‘এ’ চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। চোখ সুস্থ রাখতে বেশি করে ফুলকপি খাওয়া উচিত।

মিষ্টিকুমড়া: প্রাকৃতিক পুষ্টি উপাদানের ‘পাওয়ার হাউস’ বলা যেতে পারে মিষ্টিকুমড়াকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিয়মিত খাদ্যতালিকায় মিষ্টিকুমড়া রাখলে কেবল চোখ ও ত্বক সুস্থ থাকে না, এড়ানো যায় অনেক অসুখ-বিসুখ। চোখের ব্যায়াম: চোখের উপযোগী ব্যায়াম নিয়মিত করা উচিত। মাথা সোজা রেখে চোখ হাতের ডান থেকে বাঁয়ে ও বাঁ থেকে ডানে ১০ বার ঘোরাতে হবে। প্রতিদিন সম্ভব না হলে সপ্তাহে অন্তত তিন দিন করা যেতে পারে। চোখের ক্লান্তি দূর: চোখের ক্লান্তি দূর করতে প্রকৃতির সবুজ রঙের জুড়ি নেই। একটু সময় পেলে সবুজে ঘেরা কোথাও থেকে ঘুরে আসুন। মনও ভালো থাকবে, চোখও আরাম পাবে।
তথ্যসূত্র: জিনিউজ।
শীতে চোখের যতœ
নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ ডিসেম্বর, সোমবার : শীতের সময় ত্বক আর চুলের যতেœ অনেকেই তৎপর থাকেন। শীতের সময় ত্বক আর চুলের পাশাপাশি চোখের জন্য বাড়তি যতœ নেওয়া দরকার। শীতের সময় চোখের পুরোপুরি যতœ না নিলে দৃষ্টিশক্তির ক্ষতি হয়। শীতে চোখের বাড়তি যতœ হিসেবে যা করবেন: চশমা ব্যবহার করুন: যখন বাইরে যাবেন, অবশ্যই চোখে চশমা ব্যবহার করুন। এ সময় বাতাসে ধূলিকণা বেশি থাকে। সরাসরি সূর্যের আলো যাতে চোখে না পড়ে, এ জন্য পুরো চোখ ঢেকে থাকে—এমন ফ্রেমের চশমা ব্যবহার করতে পারেন। শরীর আর্দ্র রাখুন: শীতের সময় শরীর আর্দ্র রাখতে প্রচুর তরলজাতীয় খাবার খান। শুধু পানি পানের পরিবর্তে গরম গরম স্যুপ খান, যা শরীর উষ্ণ ও আর্দ্র রাখতে সাহায্য করবে। এতে চোখের শুষ্কভাব কমবে।
ওমেগা-৩ যুক্ত খাবার খান: ওমেগা-৩ যুক্ত মাছ বেশি করে খান। এতে চোখে অশ্রু বেশি তৈরি হবে এবং চোখ শুষ্ক হবে না।
ফুলকপি: চোখের যতেœ ফুলকপির কোনো তুলনা হয় না। ফুলকপিতে থাকা ভিটামিন ‘এ’ চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। চোখ সুস্থ রাখতে বেশি করে ফুলকপি খাওয়া উচিত।

মিষ্টিকুমড়া: প্রাকৃতিক পুষ্টি উপাদানের ‘পাওয়ার হাউস’ বলা যেতে পারে মিষ্টিকুমড়াকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিয়মিত খাদ্যতালিকায় মিষ্টিকুমড়া রাখলে কেবল চোখ ও ত্বক সুস্থ থাকে না, এড়ানো যায় অনেক অসুখ-বিসুখ। চোখের ব্যায়াম: চোখের উপযোগী ব্যায়াম নিয়মিত করা উচিত। মাথা সোজা রেখে চোখ হাতের ডান থেকে বাঁয়ে ও বাঁ থেকে ডানে ১০ বার ঘোরাতে হবে। প্রতিদিন সম্ভব না হলে সপ্তাহে অন্তত তিন দিন করা যেতে পারে। চোখের ক্লান্তি দূর: চোখের ক্লান্তি দূর করতে প্রকৃতির সবুজ রঙের জুড়ি নেই। একটু সময় পেলে সবুজে ঘেরা কোথাও থেকে ঘুরে আসুন। মনও ভালো থাকবে, চোখও আরাম পাবে।
তথ্যসূত্র: জিনিউজ।
ষ্টিশক্তির ক্ষতি হয়। শীতে চোখের বাড়তি যতœ হিসেবে যা করবেন: চশমা ব্যবহার করুন: যখন বাইরে যাবেন, অবশ্যই চোখে চশমা ব্যবহার করুন। এ সময় বাতাসে ধূলিকণা বেশি থাকে। সরাসরি সূর্যের আলো যাতে চোখে না পড়ে, এ জন্য পুরো চোখ ঢেকে থাকে—এমন ফ্রেমের চশমা ব্যবহার করতে পারেন। শরীর আর্দ্র রাখুন: শীতের সময় শরীর আর্দ্র রাখতে প্রচুর তরলজাতীয় খাবার খান। শুধু পানি পানের পরিবর্তে গরম গরম স্যুপ খান, যা শরীর উষ্ণ ও আর্দ্র রাখতে সাহায্য করবে। এতে চোখের শুষ্কভাব কমবে।
ওমেগা-৩ যুক্ত খাবার খান: ওমেগা-৩ যুক্ত মাছ বেশি করে খান। এতে চোখে অশ্রু বেশি তৈরি হবে এবং চোখ শুষ্ক হবে না।
ফুলকপি: চোখের যতেœ ফুলকপির কোনো তুলনা হয় না। ফুলকপিতে থাকা ভিটামিন ‘এ’ চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। চোখ সুস্থ রাখতে বেশি করে ফুলকপি খাওয়া উচিত।

মিষ্টিকুমড়া: প্রাকৃতিক পুষ্টি উপাদানের ‘পাওয়ার হাউস’ বলা যেতে পারে মিষ্টিকুমড়াকে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিয়মিত খাদ্যতালিকায় মিষ্টিকুমড়া রাখলে কেবল চোখ ও ত্বক সুস্থ থাকে না, এড়ানো যায় অনেক অসুখ-বিসুখ। চোখের ব্যায়াম: চোখের উপযোগী ব্যায়াম নিয়মিত করা উচিত। মাথা সোজা রেখে চোখ হাতের ডান থেকে বাঁয়ে ও বাঁ থেকে ডানে ১০ বার ঘোরাতে হবে। প্রতিদিন সম্ভব না হলে সপ্তাহে অন্তত তিন দিন করা যেতে পারে। চোখের ক্লান্তি দূর: চোখের ক্লান্তি দূর করতে প্রকৃতির সবুজ রঙের জুড়ি নেই। একটু সময় পেলে সবুজে ঘেরা কোথাও থেকে ঘুরে আসুন। মনও ভালো থাকবে, চোখও আরাম পাবে।
তথ্যসূত্র: জিনিউজ।

Leave a Reply

%d bloggers like this: