শীঘ্রই জিএসপি ফিরে পাচ্ছে না বাংলাদেশ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশের পোশাক খাতের জিএসপি ফিরে পেতে আরও সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা সফররত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের garmentsরাজনীতি বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি ওয়েন্ডি শারম্যান। তিনি আরও বলেন, পোশাক কারখানাগুলোর কর্মপরিবেশ আগের চেয়ে অনেক উন্নত হয়েছে, তবে জিএসপি পেতে বেশ কিছু বিষয়ের অগ্রগতি হওয়া দরকার। শুক্রবার ঢাকায় বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার অংশিদারিত্বমূলক সংলাপ শেষে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন মেঘনায় বেলা সাড়ে এগারটার দিকে সংবাদ সম্মেলনটি আয়োজন করা হয়। এসময় আন্ডার সেক্রেটারি শারম্যান বলেন, একক দেশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের সবচেয়ে বড় আমদানিকারক। দুই দেশের ব্যবসায়িক সম্পর্ক এখানেই শেষ নয়, শেভরন ও কোকাকোলার মতো যুক্তরাষ্ট্রের অনেক কোম্পানি বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। একটি শক্তিশালী বিশ্বমানের ‘ব্র্যান্ড বাংলাদেশ’ গড়ে তুলতে আমাদের প্রতিশ্রুতির অংশ হিসেবে এবং শ্রমিক অধিকার ও নিরাপত্তার প্রতি সম্মান গড়ে তুলতে সরকার, ব্র্যান্ডসমূহ, কারখানার মালিক ও ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র কাজ করছে। মার্কিন এ কর্মকর্তা আরও বলেন, বাংলাদেশ পোশাক খাতে ২৫০টিরও বেশি নতুন ইউনিয়ন নিবন্ধন, কারখানার পরিবেশের অনলাইন ডাটাবেস এবং ১০০ জনেরও বেশি নতুন শ্রমিক পর্যবেক্ষকের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম বাংলাদেশের বড় অর্জন। তারপরেও অনেক কাজ বাকি রয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে, এখনও পোশাক খাতের ইউনিয়ন সংগঠক ও নেতারা হয়রানি, এমনকি শারীরিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। সরকার ও কারখানা মালিকগণকে এই ভীতি প্রদর্শনের কৌশল বন্ধ করতে একত্রে কাজ করতে হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। যুক্তরাষ্ট্রও এ বিষয়ে সহায়তা করছে বলে জানান মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এ কর্মকর্তা। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক, যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়াল, ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সূত্র : শীর্ষ নিউজডটকম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*