শিবিরের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : দৈনিক পূর্বকোণ, পূর্বদেশসহ কতিপয় পত্রিকায় গত ২২ ফেব্র“য়ারী রবিবার প্রকাশিত ”চট্টগ্রামে শিবিরের নাশকতার পরিকল্পনা” শীর্ষক মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও আshibirজগুবি কল্পকাহিনী তৈরী করে খবর প্রকাশের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির চট্টগ্রাম মহানগরী উত্তর সভাপতি নুরুল আমিন, দক্ষিণ সভাপতি এম. এইচ. সোহেল ও চবি সভাপতি মুস্তাফিজুর রহমান। এক যৌথ প্রতিবাদ বার্তায় ছাত্রশিবির নেতৃবৃন্দ বলেন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য এনামুল কবির, নগর উত্তর শিবির নেতা মু. মোস্তফা ও কর্মী মাহিনকে গ্রেপ্তার করার পর তাদেরকে জড়িয়ে একশ্রেণির গণমাধ্যম মিথ্যা, বানোয়াট সংবাদ তৈরির প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হয়েছে। এরই অংশ হিসাবে উক্ত গণমাধ্যমের কর্মীরা তাদের পেশাগত দায়িত্ব ভুলে শিবিরের বিরুদ্ধে আজগুবি কল্পকাহিনী বানিয়ে জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করার পাঁয়তারা করছে। কেন্দ্রীয় সংগঠনের পক্ষ থেকে ইতোপূর্বে এনামুলের চট্টগ্রামে আগমনের বিষয়ে অবহিত করে গণমাধ্যমকে জানানো হলেও তা সম্পূর্ণ এড়িয়ে বরং নাশকতার পরিকল্পনা করছে বলে ভিত্তিহীন খবর প্রকাশে বেশি জোর দিচ্ছে। একই সাথে সংশ্লিষ্ট সংবাদে কেন্দ্রীয় সভাপতি সহ আরো কয়েকজন জনপ্রিয় নেতৃবৃন্দকে জড়িয়ে এসব মিথ্যা ভিত্তিহীন ও মনগড়া কল্পকাহিনী তৈরী করছে। সুনির্দিষ্ট তথ্যপ্রমাণ ছাড়া পুলিশের দাবী করা তথাকথিত চিঠি বরাত দিয়ে প্রকাশিত সংবাদটি দেখে আমরা হতবাক হয়েছি। শিবির নেতৃবৃন্দ দ্ব্যার্থহীণ ভাষায় বলেন, এনামুল কবিরের ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতির কোন চিঠি নিয়ে আসাার প্রশ্নই আসে না। আমরা চ্যালেঞ্জ করছি, এ ধরনের কোন চিঠি শিবির সভাপতি পাঠাননি। এনামুল কবির কোন এজেন্ডা নিয়েও চট্রগ্রামে আসেন নি। খবরে চিঠির কথা উল্লেখ করা হলেও কোন চিঠির অনুলিপি প্রদর্শন অথবা শিবিরের কারো বক্তব্যও তুলে ধরা হয়নি, শুধুমাত্র পুলিশের গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করার পর রিপোর্টারগণ নিজের ইচ্ছামত সংবাদ তৈরী করে প্রকাশ করাটা নিচু মানষিকতাও হলুদ সাংবাদিকতর বহিঃপ্রকাশ ব্যতিত আর কিছুই হতে পারে না। এনামুল কবির গত কয়েকদিন আগে একান্ত ব্যক্তিগত কাজে চট্টগ্রামে এসেছেন। সেখান থেকে তাকেসহ ৩জন কে পুলিশ আত্মীয়ের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে নিলেও তাদেরকে রিমান্ডের নামে থানায় নির্যাতন করে আজগুবি গল্প তৈরীতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। এমন হীন কাজের নিন্দা জানানোর ভাষা সভ্য সমাজ হারিয়ে ফেলেছে। সারাদেশে অবরোধ, হরতাল ও আন্দোলনে জনগনের আন্দোলনে দিশাহারা হয়ে অবৈধ সরকারের তল্পিবাহী, দালাল সম্প্রদায়ের লোক জন ক্ষমতা হারানোর ভয়ে জনগণের দৃষ্টিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার অশুভ পরিকল্পনার অংশ হিসাবে কল্পনাপ্রসুত সংবাদ তৈরী করে অপপ্রচার চালানোর চেষ্টা করছে । আমরা দৃঢ়তার সাথে বলতে চাই ছাত্রশিবির খবরে উল্লিখিত হীনমন্যতায় কখনো বিশ্বাস করে না। দেশের সম্পদ নষ্ট করে জনগণকে বিপদে ফেলার রাজনীতি ছাত্রশিবির কখনো করেনি বরং সরকার ও তাদের নিয়োগ করা এজেন্ট বিভিন্ন সময়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে গাড়িতে আগুন দিয়ে মানুষ হত্যার অপরাজনীতি করছে। বিভিন্ন জায়গায় মিথ্যা মামলা দিয়ে ২০ দলের নেতা কর্মীদের গ্রেপ্তার হয়রানী করে যাচ্ছে। শিবির নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে এনামুল কবির সহ সারাদেশে গ্রেপ্তারকৃত নেতা-কর্মীদের মুক্তি দাবি করেন এবং সরকারকে পদত্যাগ করে জনগণের অংশগ্রহণ মূলক নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের সাধারণ মানুষের জনদাবী পূরণের আহ্বান জানান। সে সাথে গণমাধ্যম গুলোকে সরকারের আজ্ঞাবাহী না হয়ে তথ্যনির্ভর সঠিক সংবাদ প্রকাশের জন্য অনুরোধ করেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: