লিমনকে সাতদিন রিমান্ডে চাইবে পুলিশ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৭ নভেম্বর: ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বহিস্কৃত সহ সম্পাদক সাইফুল আলম লিমনসহ গ্রেপ্তার চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাতদিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন জানাবে খুলশি থানা পুলিশ। শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে তাদের আদালতে হাজির করবে পুলিশ। এসময় আদালতে সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন জমা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন খুলশি থানার ওসি নিজাম উদ্দিন।Limon
ওসি নিজাম উদ্দিন বলেন, আমরা সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন প্রস্তুত করেছি। আসামির সঙ্গে সেটা আদালতে পাঠাব। তবে শুক্রবার হওয়ায় রিমান্ড শুনানি হবে না। আদালত শুনানির সময় নির্ধারণ করে দেবেন। বুধবার (২৫ নভেম্বর) রাতে নগরীর লালখান বাজারের হাইওয়ে সোসাইটির ভূতাই কলোনির ওমর ফারুক টাওয়ারের নিজ বাসা থেকে লিমনসহ চারজনকে আটক করা হয়। লিমন ছাড়া আটক অন্য তিনজন হলেন তৌহিদুল ইসলাম তৌহিদ (২৯), সাদ্দাম হোসেন (২৩) ও আজিজুল হক (২৭)। এসময় লিমনের বাসা থেকে তিনটি ওয়ান শ্যূটার গান, একটা বিদেশি পিস্তল, সাত রাউন্ড গুলি এবং চারটি ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়।
বৃহস্পতিবার তাদের খুলশি থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব। তাদের বিরুদ্ধে ১৯৭৮ সালের অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করেন র‌্যাব-৭ এর উপ সহিকারি পরিচালক আব্দুল মজিদ। রেলওয়ের দরপত্র নিয়ে সংঘাত এবং খুনোখুনির ঘটনায় গত তিন বছর ধরে চট্টগ্রামে লিমনের নাম আলোচিত হয়ে আসছে। ২০১৩ সালের ২৪ জুন সিআরবিতে লিমন গ্রুপের সঙ্গে তার বিরোধী গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘাত হয়।
এতে নিহত হন যুবলীগ কর্মী সাজু পালিত (২৮) ও আট বছরের শিশু আরমান। এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় লিমনকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। পরে জামিনে ছাড়া পেয়ে লিমন ফের সিআরবিতে আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা চালান। সম্প্রতি তার বাহিনীর সঙ্গে প্রতিপক্ষ গ্রুপের কয়েক দফা রক্তক্ষয়ী সংঘাত হয় যা থামাতে পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি’র সমন্বয়ে যৌথবাহিনীকে পর্যন্ত অভিযানে নামতে হয়।
এর মধ্যে সোমবার (২৩ নভেম্বর) সিআরবিতে সংঘাতে দু’জন নিহতের মামলার অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেয় তদন্তকারী সংস্থা নগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। এতে লিমনকে প্রধান আসামি করা হয়। বৃহস্পতিবার আদালত অভিযোগপত্রটি গ্রহণ না করে ফের তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিআইবি) কাছে পাঠিয়েছে। জোড়া খুনের পর ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত হয়েছিলেন সাইফুল আলম লিমন। তার বহিষ্কারাদেশ আর প্রত্যাহার করা হয়নি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: