রাষ্ট্রপতির কাছে সুবিচার চাইলেন মুজাহিদের স্ত্রী

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২১ নভেম্বর: রাষ্ট্রপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদের কাছে সুবিচার চেয়েছেন জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের স্ত্রী তামান্না ই জাহান। তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতিকে সাংবিধানিক অভিভাবক মনে করেন আমার স্বামী। তার কাছেই সুবিচারই পাওয়া যাবে বলে আমরা প্রত্যাশা করছি। শনিবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।muza
তিনি জানান, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হত্যা মামলায় মুজাহিদের অবস্থান কি হবে তা জানতে রাষ্ট্রপতির কাছে একটি আবেদন করবেন জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুহাম্মদ মুজাহিদ। একই সাথে রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন পৌছানোর জন্য আইনজীবীদের সাক্ষাত চেয়েছেন মুজাহিদ।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় মুজাহিদকে আসামী করা হয়েছে। তাই রায় নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তিনি আইনি সহায়তা অব্যাহত রাখার সুযোগ প্রদান করতে রাষ্ট্রপতির সহায়তা চাইবেন।
সংবাদ সম্মেলনে মুজাহিদরে স্ত্রী জানান, গত ১৯ নভেম্বর কারাগারে সাক্ষাতে মুজাহিদ জানিয়েছেন, আপিল বিভাগের দেয়া রায়ের কপি তার কাছে আসলে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে লিখিভাবে জানতে চাইবেন যে, ২১ আগস্ট হত্যা মামলায় তার অবস্থান কি হবে। ঐ মামলাল সম্পুরক চার্জশীটে তার নাম অন্তর্ভূক্ত করার কারণে জাতির সামনে হত্যাকারী হিসেবে তার নাম এসেছে। আর এ কারণে তিন আইনি লড়াই করে সে দায় থেকে মুক্তি পেতে চান। কেননা এই পর্যন্ত আদলতে হাজির হওয়া কোন সাক্ষি তাকে জড়িয়ে কোন বক্তব্য দেননি।
মুজাহিদের স্ত্রী জানান, গত ১৬ জুন মুজাহিদের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগের রায় ঘোষণার দিন তাকে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় হাজির করা হয়। মৃত্যুদণ্ড রায় বহাল রাখার পরও শেষ দিন পর্যন্ত গত ৯ ও ১০ নভেম্বর বিশেষ ট্রাইব্যুনালে তাকে হাজির করা হয়। আগামী ২৩ নভেম্বর এই মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুজাহিদের স্ত্রী।
এতে উপস্থিত ছিলেন তার তৃতীয় পুত্র আলী আহমেদ মাবরুর, ছোট ছেলে আলী আহমেদ তাহকিক, মুজাহিদের বড় ভাই আলী আফজাল খালেদ, তার ছোট ভাই আলী আজগর আসলাম, তাদের আইনজীবী সাইফুর রহমান ও এস এম কামালউদ্দিন। সূত্র: ঢাকাটাইমস

Leave a Reply

%d bloggers like this: