রাজনৈতিক ভাষ্যকার ফরহাদ মজহারকে ডিবি কার্যলয়ে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৪ জুলাই ২০১৭, মঙ্গলবার: আদাবর থানা থেকে কবি, প্রাবন্ধিক ও রাজনৈতিক ভাষ্যকার ফরহাদ মজহারকে ডিবি কার্যলয়ে নেওয়া হয়েছে। এর আগে যশোর থেকে উদ্ধারের পর তাকে ঢাকার আদাবর থানায় নিয়ে আসা হয়। তার স্ত্রী ফরিদা আখতার জানিয়েছেন, ফরহাদ মাজাহারকে তার পরিবারের কাছে তুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে আজ মঙ্গলবার সকাল পৌনে আটটা নাগাদ তাকে থানায় নিয়ে আসা হয়।
যশোরের অভয়নগরের একটি সড়কে হানিফ পরিবহনের ওই বাস থেকে ফরহাদ মজহারকে উদ্ধারের পর তার টিকিট নিয়ে দেখা যায় যাত্রীর নামের জায়গায় ‘মি. গফুর’ লেখা। সোমবার (৩ জুলাই) দিনগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা মেট্রো ব-১৪-৯৮০১ সিরিয়ালের বাসটির আই-৩ সিট থেকে উদ্ধার হন ফরহাদ মজহার।
সকালে ফরহাদ মজহারকে ঢাকার আদাবরের নিজ বাসা থেকে ডেকে নিয়ে অপহরণ করা হয় বলে অভিযোগ করেন তার পরিবারের সদস্যরা। পরিবারের অভিযোগ অনুযায়ী আদাবর থানায় একটি জিডি লিপিবদ্ধ করা হয়। জিডি নং-১০১।
তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় ফোনের অবস্থান শনাক্ত করে ফরহাদ মজহারকে উদ্ধারে খুলনা মহানগরে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত তল্লাশি চালায় র‌্যাব-৬। সেখানে তাদের অভিযান চলাকালে নিউমার্কেট এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে সাড়ে ৮টার দিকে ফরহাদ মজহারকে দেখতে পাওয়ার খবর মেলে। কিন্তু আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে আর পায়নি। ১১টার দিকে খুলনায় উদ্ধার-অভিযান স্থগিত ঘোষণার আধঘণ্টা পর অভয়নগরে ফরহাদ মজহারকে পাওয়া যায়।
আদাবর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) সুজিত কুমার সাহা জানান, পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নেতৃত্বে একটি দল ফরহাদ মজহারকে ঢাকায় নিয়ে এসেছেন। তাঁকে আদাবর থানায় নেওয়া হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
উদ্ধার করার পর গতকাল দিবাগত রাত ১টা ২০ মিনিটে খুলনার ফুলতলা থানায় সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি দিদার আহমেদ জানিয়েছিলেন, ফরহাদ মজহারের ব্যাগে মোবাইল ফোনের চার্জার, শার্টসহ বেড়াতে যাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় জিনিস পাওয়া গেছে। ব্যাগ দেখে বোঝা যায় যে তিনি স্বেচ্ছায় ভ্রমণে এসেছেন। তিনি সুস্থ আছেন। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, অপহরণ নাটক সাজানো হয়েছিল বলে মনে হয়। আদাবর থানায় সাধারণ অভিযোগ (জিডি) হওয়ায় রাতেই ফরহাদ মজহারকে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাছে হস্তান্তর করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*