রাজধানীর যানজটের দায় শুধু চালক নয়, যাত্রীরও

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : ২৫ জানুয়ারি,২০১৭
রাজধানীর সব সড়কেই নির্ধারিত বাসস্টপ আছে যাত্রী ওঠা-নামার জন্য। আছে বাস বে, যাত্রী ছাউনি। তার পরও যেখানে-সেখানে বাস থামিয়ে ওঠানো হয় যাত্রী। বিশেষ করে বিভিন্ন ট্রাফিক সিগন্যাল মোড়ে যাত্রী ওঠানো-নামানো সাধারণ চিত্র হয়ে দাঁড়িয়েছে। রাজধানীর যানজটের এটা এক বড় কারণ।

যেখানে-সেখানে বাস থামানোর এ প্রবণতার জন্য চালকদের পাশাপাশি দায় আছে যাত্রীদেরও। তারা বাসস্টপে যাওয়ার গরজ বোধ করে না, মোড়ে মোড়ে ভিড় করে বাসের জন্য। কখনো কখনো পথের মাঝে বাস থামান।

কাউন্টার সার্ভিসের কয়েকজন যাত্রীর ভাষ্য, যাত্রীরা মোড়ে ভিড় না করে বাসস্টপে এলে বাসগুলো এখানেই এসে থামত। আবার বাসগুলো যদি মোড়ে না থামে তাহলে যাত্রীরা বাসস্টপে আসতে বাধ্য হবে।

রাজধানীর বিভিন্ন মোড়ে সরেজমিনে দেখা গেছে, প্রতিটি মোড়ে যাত্রীর ভিড়্। বাসগুলো ট্রাফিক সিগন্যাল পেরিয়েই সেখানে থেমে যাচ্ছে। তাতে পেছনের গাড়িগুলো এগোনোর পথ রুদ্ধ হয়। নির্ধারিত সময়ে যতসংখ্যক গাড়ি সিগন্যাল পেরোনোর কথা, তার সামান্যই কেবল যেতে পারে। ফলে পেছনে দীর্ঘ হয় যানজট, আর সামনে খালি পড়ে থাকে রাস্তা।

এই চিত্র শাপলা চত্বর, পুরানা পল্টন, শাহবাগ, বাংলামোটর, ফার্মগেট, বনানী, মহাখালী, মিরপুর ১০ নম্বর গোল চত্বর, সিটি কলেজের সামনে, সাইন্সল্যাব মোড়, টেকনিক্যাল, মালিবাগসহ প্রায় সব মোড়েই। কোথাও কোথাও ডিএমপির ‘এখানে বাস থামাবেন না, থামলেই রেকারিং’ লেখা সাইনবোর্ড বসানো আছে, কিন্তু এর থোড়াই কেয়ার করে বাসগুলো। যানবাহন নিয়ন্ত্রণে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সামনেই ওঠানো-নামানো হচ্ছে যাত্রী। এমনকি বাস থামিয়ে যাত্রীর জন্য হাঁকডাক করে বাসের সহকারীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*