রাজউকে মুজাহিদের প্লটের ফাইল যাচাই-বাছাই

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৩ নভেম্বর: রাষ্ট্রীয় ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ’ রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) প্লট পেয়েছিলেন জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ।muzahid
রাজধানীর অভিজাত এলাকা উত্তরায় বরাদ্দ পাওয়া ওই প্লটে তিনি ছয়তলা বাড়িও তুলেছেন। তার ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর সেই প্লটের বরাদ্দ বাতিলের দাবি জানাচ্ছে কিছু লোক। এ অবস্থায় বরাদ্দ বাতিলের সুযোগ আছে কি-না তা যাচাই-বাছাই করে দেখছে রাজউক।
রাজউক সূত্রে জানাগেছে, ভূমি বরাদ্দ বিধিমালার ১৯৬৯ (সংশোধিত) ১৩/ক ধারা বলে মুজাহিদকে প্লটটি দেওয়া হয়েছিল। ১৩/ক ধারায় বলা আছে, ‘রাষ্ট্রীয় ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বিশিষ্ট ব্যক্তি যার রাজধানীতে থাকার জায়গা নেই, তাকে প্লট বরাদ্দ দেওয়া যেতে পারে। এ ছাড়া সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিরাও এ ধারায় রাজউকের প্লট বরাদ্দ পাওয়ার যোগ্য।’
রাজউকের কর্মকর্তারা জানান, দেশের গুণী ও দেশ-জাতির জন্য বিশেষ অবদান রাখা অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল ব্যক্তির বাসস্থানের জন্য এ ধারাটি রাখা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে ওই ব্যক্তিকে রাজউকের কাছে আবেদন করতে হয়। ওই আবেদনপত্র পূর্ত মন্ত্রণালয় বা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মতামতের জন্য রাজউক পেশ করতে পারে বা রাজউক তার ক্ষমতাবলেও প্লট বরাদ্দ দিতে পারে।
প্লট পাওয়ার আগে আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ তার আবেদনে উল্লেখ করেন, ঢাকায় বসবাসের মতো তার কোনো জমি নেই। নিজস্ব আয় দিয়ে জায়গা কেনার মতো আর্থিক অবস্থাও তার নেই। দেশের জন্য কাজ করতে গিয়ে তার এমন আর্থিক দৈন্যের সৃষ্টি হয়েছে। মাথাগোঁজার একটু ঠাঁই নির্মাণের জন্য তাকে একটি প্লট বরাদ্দ দেওয়া হোক।
ওই আবেদনের পর ১৩/ক ধারার সুযোগ নিয়ে ২০০৫ সালের ২৫ অক্টোবর রাজউকের ১৬২তম বোর্ড সভায় আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদকে রাজউকের উত্তরা মডেল টাউনের ১১ নম্বর সেক্টরের ১০ নম্বর রোডের ৫ নম্বর প্লটটি বরাদ্দ দেওয়া হয়। সূত্র: ঢাকাটাইমস

Leave a Reply

%d bloggers like this: