যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের একটি মসজিদ সম্পূর্ণ আগুনে পুড়েছে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৯ জানুয়ারি ২০১৭, রবিবার: যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য টেক্সাসের একটি মসজিদ সম্পূর্ণ আগুনে পুড়েছে। সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদেরকে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আদেশ জারিরকয়েক ঘণ্টার মধ্যে এই আগুনের ঘটনা ঘটলো। পরে চার ঘণ্টার চেষ্টায় তা নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস।
মার্কিন বার্তা সংস্থা এপির বরাত দিয়ে সে দেশের সংবাদমাধ্যম এবিসি নিউজ এই খবর জানিয়েছে। মসজিদে এই আগুন লাগার কারণ দুর্ঘটনা নাকি নাশকতা, তা নিয়ে এখনও কোনও মন্তব্য করেনি কর্তৃপক্ষ। বার্তা সংস্থা এপির খবরে বলা হয়, বেশ কয়েক বছর আগেও একবার ধর্মীয় অসহিষ্ণুতার শিকার হয়েছিল মসজিদটি। কিছুদিন আগে সেখানে চুরিও হয়েছিল।
অসহায়ের মতো চোখের সামনে মসজিদ পুড়ে যাওয়ার দৃশ্য দেখা ছাড়া কিছুই করতে পারেননি কেউ। কিছুই করতে পারেননি নিজের বিশ্বাসে থাকা উপাসনালয়টি পুড়ে যাওয়া ঠেকাতে। মসজিদের প্রেসিডেন্ট শাহিদ হাশমির ভাষ্য অনুযায়ী পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে মসজিদটি।
শুক্রবার এক নির্বাহী আদেশে তিন মাসের জন্য সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে স্থগিতাদেশ দেন নতুন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সব শরণার্থীর বেলায়, স্থগিতের মেয়াদ নির্দিষ্ট ৪ মাস হলেও সিরিয়ার ক্ষেত্রে এই মেয়াদ অনির্দিষ্টকালের। প্রশাসনের শরণার্থী সীমিতকরণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে ওই নির্বাহী আদেশে সই করেন ট্রাম্প। এই আদেশে যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয়ের ক্ষেত্রে মুসলিম প্রধান দেশগুলোর মুসলিমদের বদলে খ্রিষ্টান ও সংখ্যালঘুদের প্রাধান্য দেওয়ার কথা বলা হয়।
ট্রাম্পের এ নির্বাহী আদেশ জারির পর পরই এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরে এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তুমুল সমালোচনা চলছে। দ্য কাউন্সিল অন আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশন্স সিএআইআর-এর লেনা এফ মাসরি ক্ষোভ জানিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানকে বলেন, ‘আমাদের দেশে প্রবেশকারী শরণার্থীদের সবাই যে জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি তৈরি করছে, তেমন কোনও প্রমাণ নেই। ধর্মবিদ্বেষ থেকে এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, বাস্তবসম্মতভাবে নয়।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*