যাত্রাবাড়ীতে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২ জনের পরিচয় মিলছে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর মাত্যুয়াইলে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত দুইজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। একজনের নাম মুজাহিদুল ইসলাম জাহিদ (৩৩) Jattaraঅপরজনের নাম সাখাওয়াত হোসেন রাহাত (১৯)। বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপতালের মর্গে নিহতের স্বজনরা তাদের সনাক্ত করেন। যাত্রাবাড়ী থানার এস আই হুমায়ূন কবির তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, প্রথমে বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে নিহত মুজাহিদের লাশ সনাক্ত করেন তার সিঙ্গাপুর প্রবাসী ছোট ভাই মোহাম্মদ সোহাগ। তাদের গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামে। তার বাবার নাম আবুল খায়ের ভূইয়া। এরপর দুপুরে সাখাওয়াত হোসেন রাতাহকে সনাক্ত করেন তার খালাতো ভাই রিপন ও বন্ধু শরীফ। তাদের গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার রদুয়া গ্রামে। তার বাবার নাম আলমগীর হোসেন। নিহত জাহিদের ভাই মোহাম্মদ সোহাগ জানান, মুজাহিদের সঙ্গে দীর্ঘদিন তাদের পরিবারের কোনো যোগাযোগ ছিল না। তিনি রাজধানীর কারওয়ানবাজার এলাকায় কাঁচামালের ব্যবসা করতেন। তবে কিভাবে তিনি খবর পেয়েছেন তা বলতে রাজি হয়নি। এদিকে, নিহত সাখাওয়াত হোসেন রাহাতের খালাতো ভাই রিপন জানান, রাহাত ফার্মগেটের ‘উত্তরণ মোটরস’ এর কর্মচারী ছিল। তিনি দুই বছর আগে সেখানে কাজে যোগদান করেন। গত ২১ জানুয়ারি বেলা আড়াইটার দিকে তাকে ওই দোকানের সামনে থেকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে সাদা পোশাকদারী কয়েকজন ব্যক্তি তাকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ২১ তারিখ তেজগাঁও থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গেলে পুলিশ ওইদিন জিডি নেয়নি। পরের দিন ২২ জানুয়ারি তার মা সুফিয়া বেগম একটি জিডি করেন। জিডি নম্বর ১২৫১। এরপর ২৭ জানুয়ারি একই থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন তিনি। কিন্তু তারপরও রাহাতের কোনো খবর দিতে পারেনি পুলিশ। তিনি আরো জানান, গণমাধ্যমে ক্রসফায়ারের খবর পাওয়ার পর মেডিকেলের মর্গে তাদের খোঁজ নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। এরপর ঢামেক হাসপাতালের মর্গে তাকে পাওয়া যায়। রাহাত কোনো রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিল না বলেও তিনি জানান। প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার রাত ৩টার দিকে যাত্রাবাড়ীর মাত্যুয়াইলের কাঠেরপুল এলাকায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই যুবক নিহত হয়। গত দুইদিনে তাদের কোনো পরিচয় পাওয়া যাচ্ছিল না।
সূত্র : শীর্ষ নিউজ ডটকম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*