মাত্র ১২ মিনিটের মধ্যে মানসিক চাপ দূর করার বৈজ্ঞানিক ৫ টি উপায়

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : মানসিক অশান্তি এবং চাপ কতোটা মারাত্মক সেটা নতুন করে কাউকে বলে বুঝিয়ে দিতে হবে না। যারা বোঝেন মানসিক চাপের ভয়াবহতা তারা প্রায় সকলেই কোনো না কোনো সময় মানসিক চাপের মধ্যে ছিলেন। মানসিক চাপ শুধুমাত্র আপনার দৈনন্দিন জীবনের উপর প্রভাব ফেলে তা নয়। মানসিক চাপ আপনার ভবিষ্যৎও নষ্ট করে দিতে পারে। আপনি আজকে চাপে পড়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিলে তা অবশ্যই ভবিষ্যতে আপনার জন্য খারাপ হবে। এছাড়া মানসিক চাপের শারীরিক প্রভাব তো রয়েছেই। অতিরিক্ত মানসিক চাপের কারণে মস্তিষ্কে চাপ পড়ে, মানসিক সমস্যা শুরু হতে পারে, শারীরিক দুর্বলতার মূল কারণ হয় meditationঅতিরিক্ত মানসিক চাপ, কারণ মানসিক চাপের কারণে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। আর তাই মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণে আনা অত্যন্ত জরুরী। কিন্তু ভাবছেন কীভাবে কমাবেন এই লাগাম ছাড়া মানসিক চাপ? চলুন মাত্র ১২ মিনিটের মধ্যে মানসিক চাপ কমিয়ে আনার বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত কিছু উপায় শিখে নেয়া যাক।
১) ডার্ক চকলেট : বিজ্ঞানীরা গবেষণায় দেখতে পান ডার্ক চকলেট যার মধ্যে প্রায় ৭০% বা তার বেশি কোকোয়া রয়েছে তা মানসিক চাপের হরমোন কোর্টিসোল নিয়ন্ত্রণে আনতে সহায়তা করে। চকলেটে রয়েছে পলিফেনল নামক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা হৃদপিণ্ডের সমস্যা এবং ক্যান্সার প্রতিরোধেও বিশেষভাবে সহায়ক।
২) মেডিটেশন : মানসিক চাপ দূর করার বেশ সহজ একটি উপায় হচ্ছে মনোযোগ অন্য দিকে সরিয়ে নেয়া। আর মেডিটেশনের মাধ্যমে এই কাজটি বেশ ভালোভাবেই হয়ে থাকে। ইউসিএলএ এর মাইন্ডফুল অ্যাওয়ারনেস রিসার্চ সেন্টার এটি প্রমাণ করে যে মানসিক চাপ দ্রুত দূর করার সহজ এবং কার্যকরী উপায় হচ্ছে মেডিটেশন।
৩) ধর্মীয় প্রার্থনা : যদিও বিজ্ঞান ও ধর্মের একটি দ্বন্দ্ব রয়েছে কিন্তু তারপরও দেখা যায় মানুষ অনেক বেশি চাপমুক্ত তখনই অনুভব করে যখন নিজেদের ধর্মীয় প্রার্থনায় নিযুক্ত হন। যেমন ধরুন, মুসলিমদের জন্য দোয়া, হিন্দুদের জন্য মন্ত্র এধরনেরই অন্যান্য ধর্মীয় প্রার্থনা বাক্যগুলো মুখে উচ্চারন করে একাগ্র ভাবে সৃষ্টিকর্তাকে মনে করার মাধ্যমেও মানসিকভাবে স্বস্তি পাওয়া যায়।
৪) ক্লাসিক্যাল মিউজিক : মানসিক চাপ শান্ত করার জন্য কোনো হেভি মেটাল মিউজিক আপনার সহায়তা করবে না একেবারেই। বৈজ্ঞানিক ভাবে প্রমাণ হয় যে ক্লাসিক্যাল মিউজিক মানুষের মস্তিষ্ককে শিথিল করতে সহায়তা করে। এতে করে মানসিক চাপ অনেকাংশে দূর হয়। এছাড়াও কাজের সময় ক্লাসিক্যাল মিউজিক শুনলে কাজ ভালো হয় এবং প্রশান্তি আসে।
৫) গ্রিন টী : গ্রিন টি অ্যামিনো অ্যাসিড এল-থিয়ানিনে ভরপির থাকে যা পুরো দিনের যন্ত্রণাদায়ক আড়ষ্টতা নিমেষে দূর করার ক্ষমতা রাখে। গবেষণায় দেখা যায় এই এল-থিয়ানিন মানব দেহে বিশেষভাবে কার্যকরী একটি উপাদান যা হার্ট রেট উন্নত করে এবং হজম ক্রিয়াও বাড়ায়। সূত্র : এলিটডেইলি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*