মহেশপুর এলাকায় দুই যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৪ মার্চ ২০১৯ ইংরেজী, বৃহস্পতিবার: চুয়াডাঙ্গার জীবননগর ও চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ সীমান্তের মহেশপুর এলাকা থেকে দুই যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। যারা জেলা পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী বলে দাবি করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীটি। বৃহস্পতিবার সকালে মরদেহ দুটি উদ্ধার করা হয়।
নিহতরা হলেন ইমরান হোসেন ও লিটু। ইমরান আলমডাঙ্গা উপজেলার কলেজপাড়ার আব্দুর রহমানের ছেলে। লিটুর বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি। তবে তিনি নিহত ইমরানের সহযোগী বলে জানিয়েছে পুলিশ।
জীনবনগর থানা পুলিশ জানায়, উপজেলার উথলী মোল্লাবাড়ি গ্রামের কৃষকরা সকালে মাঠে কাজ করতে গেলে ডিঙ্গেখালী মাঠের একটি বাগানের ভেতরে গুলিবিদ্ধ একজনের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সকাল সাড়ে নয়টার দিকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। পরে নিহতের পরিবারের সদস্যরা গিয়ে ইমরানের মরদেহ শনাক্ত করে।
জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ গণি জানান, নিজেদের মধ্যে অভ্যন্তরীণ কোন্দলে ইমরান হোসেন খুন হতে পারেন। দুর্বৃত্তরা তার মাথা ও বুকে গুলি করে হত্যা করেছে। হত্যার কারণ ও খুনিদের শনাক্ত করতে পুলিশ কাজ করছে।
সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা-জীবননগর সার্কেল) আবু রাসেল জানান, নিহত ইমরান চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে ডাকাতি, ছিনতাই, অস্ত্র ব্যবসা এবং নারী ও শিশু নির্যাতন মামলাসহ ১৪টি মামলা রয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ দীর্ঘদিন হন্য হয়ে খুঁজছিল।
অন্যদিকে চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ সীমান্তের মহেশপুর অংশে নিহত লিটু নামে ইমরানের আরেক সহযোগীর গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করার খবর পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: