মঞ্চের সাংবাদিক নুরুল আমিনকে চাকুরীচ্যুত করার প্রতিবাদে সমাবেশ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত বীর চট্টগ্রাম মঞ্চের ইউনিট প্রধান নুরুল CUJ Shamabesh Photo-18.02.15আমিন চৌধুরীকে অবৈধ ভাবে চাকুরীচ্যুত করার প্রতিবাদে এবং অবিলম্বে ৮ম ওয়েজ বাস্তবায়নের দাবীতে বীর চট্টগ্রাম মঞ্চের সামনে সমাবেশ করেছে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে)।  সমাবেশে বক্তরা অবিলম্বে নুরুল আমিনের চাকুরীচ্যুতের নোটিশ প্রত্যাহার করে তাকে চাকুরী পূনর্বহালের দাবী জানান। এসময় নেতৃবৃন্দ, গত দেড় বছরেও চট্টগ্রামের বিভিন্ন পত্রিকায় ৮ম ওয়েজ বোর্ড রেয়েদাদ বাস্তবায়ন না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করে অবিলম্বে তা বাস্তবায়নের দাবী জানানো হয়। যে সব পত্রিকা ৮ম ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়ন করবে না তাদের রেইট কার্ড প্রত্যাহার, সরকারী সুযোগ সুবিধা বন্ধসহ প্রয়োজনে সভা-সমাবেশ, ঘেরাও, কর্মবিরতি এমনি ধর্মঘটের মত কঠিন কর্মসুচী ঘোষণা করবে বলেও হুশিয়ার করে দেয়া হয়। বুধবার দুপুর ১২ টায় সিইউজের সভাপতি এজাজ ইউসুফীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সমাবেশে সিইউজের যুগ্ন সম্পাদক ম. শামসুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএফইউজের যুগ্ন মহাসচিব আসিফ সিরাজ, সিইউজের সহ সভাপতি রতন কান্তি দেবাশীষ, সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, সাবেক সভাপতি অঞ্জন কুমার সেন, মোস্তাক আহমেদ, শহীদ উল আলম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজিমুদ্দিন শ্যামল, সাংগঠনিক সম্পাদক সবুর শুভ, বিএফইউজের সদস্য মোহাম্মদ ফারুক, নির্বাহী সদস্য ফারুক তাহের, টিভি ইউনিটের প্রধান মাঈনুদ্দিন দুলাল, দৈনিক পূর্বকোণ ইউনিটের রোকসারুল ইসলাম, প্রতিনিধি ইউনিটের প্রধান মিন্টু চৌধুরী প্রমুখ। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন, বীর চট্টগ্রাম মঞ্চ কর্তৃপক্ষ সিইউজের সাথে সম্পাদিত চুক্তি অনুযায়ী দীর্ঘ দিন ধরে ৭ম ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়ন করা থেকে বিরত রয়েছে। এমনি গত ৮ মাস ধরে সংবাদকর্মীদের বেতন-ভাতা, ঈদ বোনাসসহ সাংবাদিকদের পাওনা পরিশোধে গড়িমসিসহ হয়রানি করে আসছে। সম্প্রতি সিইউজের পক্ষ থেকে চুক্তি বাস্তবায়ন এবং ৮ম ওয়েজ বোর্ড রেয়েদাদ বাস্তবায়নের জন্যে মালিক কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়ার পর বীর চট্টগ্রাম মঞ্চ পত্রিকা কর্তৃপক্ষ আরো বেপরোয়া হয়ে উঠে এবং নুরুল আমিনের উপর নির্যাতন বাড়িয়ে দেয়। এ প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ শ্রম আইন অনুযায়ী প্রতিকার পাওয়ার জন্যে সরকারের কল কারখান প্রতিষ্ঠান অধিদফতরে অভিযোগ দেয়ার পর সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বিষয়টি তদন্ত শুরু করে এবং আগামী ২২ ফ্রেব্র“য়ারী পত্রিকাটির সম্পাদক সৈয়দ উমর ফারুককে তলব করে এবং বিষয়টি মিমাংসা না হওয়া পর্যন্ত কোন ধরনের বেআইনি কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নোটিশ দেয়। কিন্তু পত্রিকাটির সম্পাদক কোন আইনের তোয়াক্কা না করে হঠাৎ করে নুরুল আমিন চৌধুরীকে চাকুরীচ্যুত করার অবৈধ নোটিশ জারি করে। সমাবেশ থেকে সাংগঠনিক মাস হিসাবে ঘোষিত বিভিন্ন কর্মসুচী বাস্তবায়নের দাবী জানানো হয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: