ভারত সফরে স্থলসীমান্ত চুক্তির দূতিয়ালি করবেন রাষ্ট্রপতি

image_109068_0ঢাকা: স্থলসীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নে দূতিয়ালি করতে এ মাসেই ভারত সফরে যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ। আগামী ১৮ ও ১৯ ডিসেম্বর তার এই সফর অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে ভারতের সংবাদপত্র জিনিউজ।

‘বাংলাদেশ প্রেজ টু ভিজিট ইন্ডিয়া’ শিরোনামে বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এই প্রতিবেদনে বলা হয়, “দুই দেশের সঙ্গে স্থলসীমান্ত চুক্তিকে এগিয়ে নিতেই এ সফর করছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও তার সাম্প্রতিক আসাম সফরে বলেছেন, সীমান্তে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বাংলাদেশের সঙ্গে স্থলসীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নে এগিয়ে যেতে চায় ভারত।”

২০১১ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের সঙ্গে স্থলসীমান্ত চুক্তি করে ভারতের তৎকালীন কংগ্রেস সরকার। স্থলসীমান্ত চুক্তি আলোকে দুই দেশের মধ্যে ১৬১টি ছিটমহলের বিনিময় হবে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, “স্থলসীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নের মূল উদ্দেশ্য হল সেখানকার ৫০ হাজার অধিবাসীর নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করা। তারা সীমান্ত এলাকায় কোনো ধরনে সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে না। তাদের এ অবস্থার পরিবর্তন প্রয়োজন।”

স্থলসীমান্ত চুক্তির আলোকে ভারত বাংলাদেশের কাছে ১১১ টি ছিটমহল হস্তান্তর করবে যার পরিমাণ ১৭ হাজার ১৬০.৬৩ একর। অপরদিকে বাংলাদেশ ভারতের কাছে ৫১টি ছিট মহল হস্তান্তর করবে যার পরিমাণ সাত হাজার ১১০.২ একর।

অপরদিকে, দুই দেশের বিরোধপূর্ণ জমির ক্ষেত্রে ভারত পাবে ২৭৭৭.০৩৮ একর এবং বাংলাদেশ পাবে ২২৬৭.৬৮২ একর। গত সোমবার ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটি দ্রুত সরকারকে সীমান্ত বিল সংসদে উত্থাপনের আহ্বান জানায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, “ভারত সরকারের সূত্র অনুযায়ী, নির্বাহী ক্ষমতাশূন্য প্রথম কোনো বাংলাদেশি রাষ্ট্রপতি হিসেবে ভারত সফর করছেন আবদুল হামিদ। এর আগে জিল্লুর রহমানসহ যেসব রাষ্ট্রপতি ভারত সফর করেছেন তাদের নির্বাহী ক্ষমতা ছিল।”

সূত্র জানায়, সফরকালে প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির প্রেসিডেন্ট ভবনে অবস্থান করবেন।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী বছর নরেন্দ্র মোদি এ সফরে যেতে পারেন বলে জানা যাচ্ছে।–জিনিউজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*