ভারত বিপজ্জনক খেলা খেলছে: পাকিস্তান

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৬ আগস্ট ২০১৯ ইংরেজী, মঙ্গলবার: জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলসহ ওই অঞ্চলে সেনা বাড়ানো নিয়ে ভারতের উত্তপ্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতির মধ্যে এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে পাকিস্তান। ভারতের এ পদক্ষেপকে অবৈধ বলেও ঘোষণা দিয়েছে দেশটি। গতকাল সোমবার এক বিবৃতিতে ভারতকে সতর্ক করে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেন, ‘ভারত বিপজ্জনক খেলা খেলছে। আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতার ক্ষেত্রে এর পরিণতি ভয়ঙ্কর হবে।’


পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘পাকিস্তান মোদি সরকারের এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে এবং এ প্রচেষ্টা আটকাতে সম্ভাব্য সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’ ভারত কাশ্মীর নিয়ে জাতিসংঘ প্রস্তাবনা লঙ্ঘন করেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘ভারত এককভাবে কাশ্মীরের মর্যাদা বদলাতে পারে না। তাদের এ সিদ্ধান্ত মেনে নেবে না জম্মু-কাশ্মীরের মানুষ এবং পাকিস্তান। কাশ্মীরের রাজনৈতিক, কূটনৈতিক এবং নৈতিক বিকাশের জন্য পাকিস্তান লড়াই চালিয়ে যাবে।’
এর আগে ভারতের বিরোধী দলগুলোর তুমুল আপত্তির মধ্যেই বিজেপি সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সোমবার লোকসভার অধিবেশনে দাঁড়িয়ে রাষ্ট্রপতির আদেশে সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ রদ করার কথা জানান। সংবিধানের এ অনুচ্ছেদ বলেই ভারত শাসিত জম্মু ও কাশ্মীর এতদিন স্বায়ত্ত্বশাসনের বিশেষ মর্যাদা পেয়ে আসছিল।
তবে মোদি সরকার তা বাতিল করে জম্মু ও কাশ্মীরে রাষ্ট্রপতির শাসন জারির পাশাপাশি ‘জম্মু ও কাশ্মীর সংরক্ষণ বিল’ নামে নতুন একটি প্রস্তাব পার্লামেন্টে উপস্থাপন করেছে। ফলে জম্মু-কাশ্মীর যে শুধু বিশেষ মর্যাদা হারাল তাই নয়, রাজ্যের স্বীকৃতিও এখন হারনোর পথে।
সরকারের আনা বিলটি পাস হলে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ কেন্দ্রশাসিত দুইটি আলাদা অঞ্চল হবে। জম্মু ও কাশ্মীরে আইনসভা থাকবে, তবে লাদাখে তা থাকবে না।
ভারতের পার্লামেন্টেও সরকারের সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা হয়েছে এবং দেশটির কয়েকজন আইন বিশেষজ্ঞ একে সংবিধানের ওপর আক্রমণ বলেও বর্ণনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*