ব্যবসায়ী নূরুল কবিরের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহলের শোক

কক্সবাজার প্রতিনিধি, ২৫ মার্চ ২০১৯ ইংরেজী, সোমবার: কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের স্বনামধন্য ব্যবসায়ী, সমাজসেবক ও সর্বজন শ্রদ্ধেয় আলহাজ্ব এ.এস.এম নূরুল কবির কন্ট্রাক্টর গত ২১ মার্চ সকাল ৭ টায় বার্ধক্যজনিত রোগে চট্টগ্রামে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইয়ি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৯ বছর। চট্টগ্রামে দুই দফা নামাযে জানাযার পর মরহুমের কক্সবাজার জেলার চকরিয়াস্থ নিজ গ্রামের বাড়িতে তৃতীয় নামাযে জানাযা শেষে যথাযোগ্য মর্যাদায় পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়। ব্যবসায়ী নূরুল কবিরের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণীর পেশার মানুষ। শোক বার্তায় স্মৃতিচারণ করে বলা হয়, ব্যবসায়ী নূরুল কবির সরাসরি রাজনীতিতে জড়িত না থাকলেও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে বিশেষভাবে অনুপ্রাণিত ছিলেন। জাতীয় পর্যায়ের বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তির কাছেও ছিলেন সম্মানের আসনে। সবার কাছে ধার্মিক ও দানবির ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত ছিলেন। নিজ অর্থায়নে মসজিদ ও হাফেজখানা প্রতিষ্ঠা করেন। এছাড়া তিনি বিশেষ গুণাবলী সম্পন্ন একজন মানুষ। যার কাছে বিপদগ্রস্ত কেউ গেলে অনায়াসে সাহায্য করেছেন আমৃত্যু। সব শ্রেণির পেশার মানুষের জন্য এই মহৎ ব্যক্তির দরজা ছিল সবসময় খোলা। প্রার্থনা করি, আল্লাহ্ উনাকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুক। প্রসঙ্গত, ১৯২০ সালে চকরিয়ায় এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন মরহুম নূরুল কবির। শিক্ষাজীবন শেষে তিনি তৎকালীন বৃটিশ নৌ বাহিনীতেও চাকরি করেন। পরবর্তীতে তরুণ বয়সে ব্যবসায় মনোনিবেশ করে নিজেকে একজন সফল ব্যবসায়ী হিসেবে গড়ে তুলতে সক্ষম হন। তাঁর ব্যবসায়িক কর্মস্থল ছিল চট্টগ্রাম শহর ও পার্বত্য এলাকায়। ঠিকাদারি ও কাঠের ব্যবসা করে তৎকালীন সময়ে ব্যবসায়ী মহলে ‘কবির সাহেব’ হিসেবে বিশেষ পরিচিতি লাভ করেন। মৃত্যুকালে তিনি ৩ পুত্র, ৮ কন্যা, অসংখ্য নাতি-নাতনী, আত্মীয়স্বজন ও শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*