বেতন বাড়ানোয় দেরি করতে পারে সরকার

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন বাড়ানোর ব্যাপারে Govtবেতন ও চাকরি কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নে দেরি হতে পারে। রাজস্ব ঘাটতি থাকায় সরকার এ ব্যাপারে আরও সময় নিতে পারে। ইতোমধ্যেই জাতীয় বেতন ও চাকরি কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নে গঠিত পর্যবেক্ষণ কমিটির মেয়াদ এক মাস বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ১৫ ফেব্রুয়ারি এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার কথা ছিল পর্যবেক্ষণ কমিটির। কিন্তু এ সময় আরও ৪ সপ্তাহ বাড়ানো হয়েছে বলে সূত্র জানায়। কমিটির একজন সদস্য ও অর্থ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, ‘অর্থমন্ত্রীর অনুমতি সাপেক্ষে আমরা আরও ৪ সপ্তাহ সময় বাড়ানোর আবেদন করেছি।’ তিনি বলেন, ‘সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য পে-কমিশনের কিছু সুপারিশের বিষয়ে পর্যবেক্ষণ কমিটি দ্বিমত পোষণ করেছে। তাই এ বিষয়ে আরও আলোচনার জন্য সময় চাওয়া হয়েছে।’ সূত্র জানায়, পর্যবেক্ষণ কমিটি বর্তমানে চুক্তিভিত্তিক কাজ, টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড নিয়ে আলোচনা করছে। পে কমিশনের প্রস্তাবিত পে স্কেল বাস্তবায়িত হলে সরকারের বেতন বাবদ খরচ বাড়বে ৬৩ দশমিক ৭ শতাংশ। অর্থাৎ বছরে অতিরিক্ত ২২ হাজার ৯৫৩ কোটি টাকা প্রয়োজন হবে। এর মধ্যে ১৭ হাজার ৪৬৪ কোটি টাকা লাগবে সরকারি কর্মকর্তাদের বেতন বাবত। ৩ হাজার ৭৯০ কোটি পেনশনভোগীদের ও ১ হাজার ৬৮৮ কোটি শিক্ষকদের। ১০ কোটি টাকা লাগবে স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলোর। জাতীয় পে সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান মো. ফরাশউদ্দিন বলেন, ‘রাজস্ব আয় যদি ১ শতাংশও বাড়ানো যায় তবে নতুন পে স্কেল বাস্তবায়নে কোনও সমস্যা হবে না।’ সূত্রের দাবি, ২০১৪-১৫ অর্থ বছরের প্রথমার্ধে (জুলাই-ডিসেম্বার) রাজস্ব বোর্ড মাত্র ৪৮ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করতে পেরেছে। যা লক্ষ্যের ৩৯ শতাংশ। এ সময় মোট রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ১ লাখ ৪৯ হাজার কোটি টাকা। দেশব্যাপী রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে রাজস্ব আদায়ে এই ঘাটতি। এটি অব্যাহত থাকলে পে স্কেল বাস্তবায়ন কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। কারণ রাজস্ব ঘাটতির মধ্যে বেতন বৃদ্ধি সরকারের ব্যয় বাড়ানোর ঝুঁকি তৈরি করবে। গত বছরের ২১ ডিসেম্বর জাতীয় বেতন ও চাকরি কমিশন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের কাছে তাদের প্রতিবেদন পেশ করে। এর ১০ দিন পর ৩১ ডিসেম্বর কমিশনের সুপারিশ পর্যালোচনার জন্য মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে আহ্বায়ক করে ছয় সদস্যের একটি পর্যবেক্ষণ কমিটি গঠন করা হয়। সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*