বিশ্ব ইজতেমার ১ম পর্ব মুনাজাতের মধ্যদিয়ে সম্পন্ন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : দুনিয়া ও আখেরাতের শান্তি কামনার পাশাপাশি বিশ্ব মুসলিম উম্মাহ’র সুখ-শান্তি, সমৃদ্ধি, সংহতি, অগ্রগতি এবং দেশ ও জাতির সার্বিক কল্যাণ প্রার্থনা করে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে তবলীগ জামাতের তিন দিনব্যাপী বৃহত্তম জমায়েত বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। monajat-0দেশ-বিদেশের লাখো মুসল্লির অংশগ্রহণে ঢাকার অদূরে টঙ্গীর তুরাগ তীরে আজ রোববার বেলা ১১টা ১৬ মিনিটে মোনাজাত শুরু হয়ে চলে ১১টা ৪৮ মিনিট পর্যন্ত। মোনাজাত পরিচালনা করেন ভারতের দিল্লীর মাওলানা মোহাম্মদ সাদ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে এবং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গুলশানে নিজের কার্যালয়ে টেলিভিশনের সামনে বসে সরাসরি সম্প্রচার দেখে মোনাজাতে অংশ নেন। এর আগে ফজরের নামাজের পরই উর্দুতে হেদায়েতি বয়ান শুরু করেন মাওলানা সাদ। তাঁর বয়ান বাংলায় তরজমা করেন বাংলাদেশের মাmonajat-1ওলানা ওয়াসিফুল ইসলাম ও মাওলানা জুবায়ের। হেদায়েতি বয়ান শেষে আখেরি মোনাজাত শুরু হয়। আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে বিএনপির লাগাতার অবরোধ আর শীত উপেক্ষা করে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মুসল্লির আসেন তুরাগ তীরে। ফজরের নামাজের পর থেকেই বিশেষ ট্রেন, বাসসহ বিভিন্নভাবে এসে ইজতেমা মাঠ ও তার আশপাশে অবস্থান নেন মুসল্লিরা। টঙ্গীর পথে শনিবার মধ্যরাত থেকেই ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে মোনাজাতে অংশ নিতে চার দিক থেকে মুসল্লিরা পায়ে হেটে ইজতেমাস্থলে পৌঁছান। টুপি পাঞ্জাবি পরা মানুষের বাঁধভাঙ্গা জোয়ারে  যত দূর চোখ যায় মানুষ আর মানুষ। সকাল ৮টার মধ্যে গোটা এলাকা জনসমুদ্রে পরিণত হয়। কোথাও তিল ধারণের ঠাঁই ছিলো না। মাঠে পৌঁছাতে না পেরে হাজারো মানুষ কামাড়পাড়া সড়ক ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ফজরের নামাজ পড়েন এবং আখেরি মোনাজাতের জন্য খবরের কাগজ, পাটি, সিমেন্টের বস্তা ও পলিথিন বিছিয়ে বসে পড়েন। সকাল সাড়ে ৮টার মধ্যেই মুসল্লিদের ভিড় ইজতেমা মাঠের আশপাশের রাস্তা, অলিগলিতে ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়াও বাসা-বাড়ি-কলকারখানা-অফিস-দোকানের ছাদে, যানবাহনের ছাদে ও তুরাগ নদীতে নৌকায় মুসল্লিরা অবস্থান নেন। ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা মহান আল্লাহ-তায়ালার কাছে চোখের পানি ফেলে monajat-2দুই হাত তুলে মোনাজাত ধরেন। শুরুর পর তারা সেখান থেকেই মোনাজাতে অংশ নিচ্ছেন।  হাঁটতে হাঁটতেই দুইহাত তুলে ইজতেমায় যাচ্ছেন। অবরোধের মধ্যে শত কষ্ট নিয়ে আসা লাখো মুসল্লি জিকির-আজকার আর বয়ান শুনে শনিবার বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় দিন পার করেছেন। ফজর নামাজের পর থেকেই বয়ান শুরু হয়। বয়ান করেন ভারতের মাওলানা ইসমাইল হোসেন গোদরা, বাদ জোহর ভারতের হজরত মাওলানা শওকত আলী, বাদ আসর ভারতের হজরত মাওলানা মোহাম্মদ জোয়াহের, বাদ মাগরিব পাকিস্তানের হজরত মাওলানা আবদুল হক। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন ভারতের মাওলানা সাদ। জানা যায়, মুসল্লিদের ভিড় তুরাগপাড় থেকে আশপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। সবাই আসেন আল্লাহর পথে, দীনের শিক্ষা নিতে। দুই দিন আগে শুরু হলেও অবরোধের মধ্যে শনিবারও monajat-3অসংখ্য মুসল্লিকে ইতজেমায় আসতে দেখা গেছে। অবরোধে কষ্ট হলেও দলে দলে তাঁরা ইজতেমায় এসে পৌঁছান। বান্দরবান থেকে শনিবার রাতে এসেছেন মুহাম্মদ রবিউল ইসলাম। একটি বড় বাসে এলেও কোনো সমস্যায় পড়তে হয়নি তাঁকে। তাঁর ভাষায়, ‘ছহি সালামতে’ চলে এসেছেন। সাতকানিয়া থেকে আসা সৈয়দ মুহাম্মদ কামরুল ইসলামের মুখেও কষ্টের কোনো কথা নেই। ঠাকুরগাঁও রোদা থেকে এসেছেন তারেকুল ইসলাম খান। জানালেন, মঙ্গলবার রাতে এশার নামাজের পর রিজার্ভ বাসে এসেছেন। বললেন, ভয় ছিল্,ো কিন্তু সমস্যা হয়নি।
১৬ জানুয়ারি থেকে ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু
গত শুক্রবার বাদ ফজর পাকিস্তানের মাওলানা মো. এহসানের আম বয়ানের মাধ্যমে ইজতেমা শুরু হয়। বয়ান বাংলায় তরজমা করেন বাংলাদেশের মাওলানা মো. আব্দুল মতিন। চার দিন পর আগামি ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় দফায় আরও ৩১ জেলার মুসল্লিদের জন্য তিন দিনব্যাপীmonajat3_.thumbnail বিশ্ব ইজতেমা শুরু হবে। ১৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে আখেরি মোনাজাত। এই মোনাজাতের মধ্য দিয়ে এবারের বিশ্ব ইজতেমা শেষ হবে।
যৌতুকবিহীন ১২১ বিয়ে
রেওয়াজ অনুযায়ী ইজতেমার দ্বিতীয় দিনে রোববার ১২১টি যৌতুকবিহীন বিয়ে হয়েছে ইজতেমাস্থলে। বাদ আসর বয়ান মঞ্চের পাশে বিয়ের আসর বসে। কনে অনুপস্থিত থাকলেও তাঁর সম্মতিতে উভয় পক্ষের লোকজনের উপস্থিতিতে বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। মোহরানার পরিমাণ ধরা হয় monajtদেড় শ তোলা রুপা বা এর সমমূল্য অর্থ।
পাঁচজনের মৃত্যু
টঙ্গী সরকারি হাসপাতাল ও ইজতেমার একজন মুরব্বি মো. আদম আলী জানান, শুক্রবার দিবাগত রাতে বার্ধক্যজনিত ও হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে পাঁচজন মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। monajt.jpg-7তাঁরা হলেন কিশোরগঞ্জের ভৈরর উপজেলার ভৈরবপুর এলাকার খায়রুল আমিন (৫৪), অষ্টগ্রাম উপজেলার আবদুল্লাহপুর এলাকার লিয়াকত আলী (৭৫), নাটোরের মাঝিনগরের নলডাঙ্গার কাফিল উদ্দিন মণ্ডল (৫৫), গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার কিত্তনিয়া এলাকার আ. সালাম (৬০) ও ঢাকার বাড্ডা এলাকার জাহাঙ্গীর আলম (৭০)।
যে পথে গাড়ী চলবে না
আখেরি মোনাজাতের দিন যানবাহন চলাচলে পরিবর্তন আনা হয়েছে। গাজীপুর ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ সুপার সাখাওয়াত হোসেন জানান, শনিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে গাজীপুরের ভোগড়া বাইপাস থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক, আশুলিয়া-বাইপাইল, কামারপাড়া, স্টেশন রোড monajitথেকে মীরের বাজার পর্যন্ত সকালে গাড়ী চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বিকল্প পথ হিসেবে ময়মনসিংহ ও সিলেট থেকে যাঁরা ঢাকা যাবেন, তাঁদের ভোগড়া বাইবাস থেকে মীরের বাজার হয়ে কাঁচপুর দিয়ে অতিক্রম করতে হবে। আবার যাঁরা রাজশাহীসহ উত্তরাঞ্চল থেকে ঢাকা যাবেন, তাঁদের নবীনগর-চন্দ্রা কিংবা আশুলিয়া-বাইপাইলের ধৌড় ব্রিজ হয়ে বেড়িবাঁধ দিয়ে অতিক্রম করতে বলা হয়েছে। মোনাজাতের দিন ঢাকা থেকে ইজতেমাস্থলগামী মুসল্লিদের টঙ্গী ব্রিজ পরিহার করে আবদুল্লাহপুর-আশুলিয়া সড়ক ধরে হেঁটে ইজতেমা ময়দানের পশ্চিম পাশ দিয়ে ভাসমান সেতু দিয়ে ময়দানের ভেতরে প্রবেশ করতে হবে। গাজীপুরের পুলিশ সুপার জানান, আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে বাড়তি নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। টঙ্গী রেলওয়ে স্টেশনের কর্মকর্তা মো. হালিমুজ্জামান জানান, আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে আখাউড়া, কুমিল্লা, ময়মনসিংহসহ বিভিন্ন রুটে ২৯টি বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ছাড়া আখেরি মোনাজাতের আগে ও পরে সব ট্রেন টঙ্গী স্টেশনে যাত্রাবিরতি করার সিদ্ধান্ত আছে।monajit-09
টঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, ইজতেমা ময়দান ও আশপাশের এলাকায় অভিযান চালিয়ে পকেটমার ও ছিনতাইকারীসহ বিভিন্ন অপরাধে ১৪ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ছাড়া র‌্যাব-১-এর সদস্যরা তিন পকেটমার-ছিনতাইকারীকে আটক করেছেন। উল্লেখ্য, ১৯৬৬ সাল থেকে টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে পাগার এলাকায় তাবলীগ জামাতের তিন দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ১৯৬৭ সাল থেকে বর্তমান স্থানে ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। মুসল্লীদের স্থান সংকুলান না হওয়ায় গত তিন বছর যাবৎ দু’দফায় বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কয়েক হাজার প্রতিনিধি যোগদান করে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*