বিরাটের জন্যে কখনো রান্না করবেন না আনুশকা!

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : সেনা কর্মকর্তার মেয়ে, বলিউডের অন্যতম সেরা অভিনেত্রী, ক্রিকেটার বিরাট কোহলির বান্ধবী বর্তমানে বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী আনুশকা jakia..anuska_1শর্মা। নতুন সিনেমা ‘বম্বে ভেলভেট’য়ের প্রচারের ছুটে বেড়াছেন দেশের একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে। পিঠে খুব ব্যথা। তা সত্ত্বেও দৌড়াদৌড়ীটা তো করতে হচ্ছে। সেদিন এয়ারপোর্টে আমাকে দেখে একজন টুইট করেছেন যে আমি নাকি ‘ব্যাড মুড’য়ে আছি। যিনি এ কথা লিখছেন তিনি তো জানেন না আমি কতগুলো ব্যথার ওষুধ খেয়ে কাজ করছি। সব সময় যে মুখে হাসি লেগে থাকবে এমনটা তো নয়- নিজের ব্যস্ততা এবং শারীরিক অবস্থার কথা এভাবেই তুলে ধরেন আনুশকা। বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে jakia..anuska -2বিরাট কোহলির খারাপ পারফর্ম্যান্সের জন্য দোষ দেওয়া হয়েছিল আনুশকাকে। তবে সেই সময় অনেকে তার পক্ষেও কথা বলেছিলেন। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ নাকি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি পুরো ঘটনাটা থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে নিয়েছিলাম। কেউ ভাল কথা বললেও হোক বা খারাপ কথা, আমি কোনও কৌতূহল দেখাইনি, জড়িয়ে পড়িনি। যাঁরা সমর্থন করছেন তাঁদের ধন্যবাদ। কিন্তু ধন্যবাদটা আমাকে সমর্থন করার জন্য নয়। চারিদিকে যখন এত নেতিবাচক, নোংরা কথা মানুষজনের মাথায় ঘুরছে সেখানে বেশ কিছু মানুষ সমাজের প্রতি কিছু ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরেছেন, তার জন্য আমার ধন্যবাদ। বলিউডে এর মধ্যে ছয় বছর পার করেছেন আনুশকা। যদিও নিজের সম্পর্কে বলেন যে তিনি খুব অস্থির। এত বছর ইন্ডাস্ট্রিতে থাকার জন্য নয়। ক্রিকেটের প্রতি ভালবাসা থেকেই কি বিরাট কোহলির প্রতি আকর্ষণ? সবচেয়ে বেশিবার এই প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন আনুশকা। তবে আনুশকার সরল উক্তি, ‘যখন কোনও সম্পর্ক তৈরি হয় তখন যার সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হচ্ছে তার সব কিছুর সঙ্গেই জীবনটা জড়িয়ে যায়। আগে ভাবতাম ক্রিকেট খেলাটা খুব সোজা। ব্যাট-বল হাতে নিলেই হল। কিন্তু এখন আমি জানি ব্যাপারটা অত সোজা নয়। jakia..anuska -3অনেক পরিশ্রমের দরকার। বিরাট যদি ক্রিকেট না খেলে অন্য কিছু করত সেটাতেই আমার আগ্রহ আর কৌতূহল থাকত। তবে এখন আমি ক্রিকেট দেখতে ভালবাসি।’ তারকাদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে সাধারণ মানুষের কৌতুহলের সীমা নেই। তবে আনুশকার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বাড়াবাড়িটা একটু বেশিই। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘মানুষের আমার প্রতি কৌতূহলের কারণ আমার কাজ। আমি যা পেয়েছি তার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। অপ্রীতিকর কিছু ঘটলে সেটাতে যদি আমি জড়িয়ে পড়ি তা হলে আমার কাজ নষ্ট হবে। আর সেটা আমি কোনও দিন হতে দেব না। কাজই আমার কাছে সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আমার পরিবারই আমার কাছে সব থেকে বড় সাপোর্ট। তা ছাড়া কোনও কিছুতেই কিছু যায় আসে না। পুরস্কার না পেলে কাঁদেন বলিউডের সাহসী অভিনেত্রী আনুশকা, এমন ধারণা প্রচলিত রয়েছে বলি পাড়ায়। তবে আনুশকা বললেন ভিন্ন কথা। তার মতে, ‘প্রথম ছবিতে কাজ করে পুরস্কার না পাওয়ার জন্যই শুধু কেঁদেছিলাম। ভেবেছিলাম আমিই ‘বেস্ট ডেবিউ’ পুরস্কারটা পাব। সেটা খুব হাস্যকর ছিল। কিন্তু এই ঘটনা থেকে একটা ব্যাপার শিখেছি। যতক্ষণ না প্রাপ্য জিনিস হাতে আসছে, ততক্ষণ সেটা আশা করা উচিত নয়।’ সব অভিনেত্রীকে প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবলেও, সকলের ভালো কাজের প্রশংসা করতে ভুলেন না আনুশকা। তিনি বলেন, ‘পরষ্পরের প্রশংসা করার ব্যাপারটা চিরকালই ছিল। কিন্তু মিডিয়া সেটা না প্রকাশ করে নেগেটিভ গল্প তুলে ধরতে চাইত। প্রতিদ্বন্দ্বী তো নায়কেরাও। নায়িকারা ঝগড়া করছে এই গল্পটাই তুলে ধরা হত এতকাল। যেন তারা একেবারেই অপেশাদার। তারা খোলামেলাভাবে ঝগড়া করে। ধন্যবাদ সোশ্যাল মিডিয়াকে। তার জন্যই সত্যি কথাগুলো এই ভাবে বেরিয়ে আসছে।’ সম্প্রতি ‘এন এইচ ১০’ য়ে নিজের স্টান্ট নিজে করেছেন। ছবিটার প্রযোজকও ছিলেন আনুশকা। সম্প্রতি করণ জোহরের সঙ্গে অভিনয় করছেন আনুশকা। সহ-অভিনেতা হিসেবে করণের সঙ্গে কাজ করতে দারুণ লেগেছে বলে জানালেন আনুশকা। দর্শকেরা করণকে পর্দায় দেখলে সত্যি চমকে যাবেন। শুধু আমার পরিবার আর মুষ্টিমেয় কিছু বন্ধুর সঙ্গে সময় কাটাতে ভালবাসেন আনুশকা। বাড়িতে থাকা, বিশ্রাম নেয়া এগুলোই তার কাছে বড় ব্যাপার। একদমই কিছু না করে বাড়িতে চুপচাপ বসে থাকতে দারুণ লাগে আনুশকার। ভক্তদের উদ্দেশে আরেকটি মজার তথ্য দিয়েছেন আনুশকা। আর সেটি হলো রান্না করতে ভালোবাসেন। তবে বিরাটের জন্যে কখনো রান্না করেননি এবং করবেনও না। কেনো করবেন না সেই কারণ অবশ্য বলেননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*