বিরল চর্মরোগে আক্রান্ত সাতক্ষীরার মুক্তামনিকে দেখতে যান মুশফিক

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২২ জুলাই ২০১৭, শনিবার: বিরল রোগে আক্রান্ত মুক্তামনিকে দেখতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গেলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেটের টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। জাতীয় বার্ন ইউনিটের প্রধান সমন্বয়কারী ডা. সামন্তলাল সেনের উপস্থিতিতে শনিবার দুপুর দেড়টায় ঢামেকের বার্ন ইউনিটে বিরল চর্মরোগে আক্রান্ত সাতক্ষীরার মুক্তামনিকে দেখতে তার কেবিনে যান মুশফিক।
এ সময় মুক্তার বাবা ও চিকিৎসার সংশ্লিষ্ট কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে তার শারীরিক অবস্থার খোঁজ-খবর নেন জাতীয় দলের এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান।
মুক্তামনির সঙ্গে মুশফিকুর রহিম কথাও বলেন। এসময় মুক্তা ক্রিকেটার মুশফিককে বলেন, ‘আপনি তো খেলা করেন।’ জবাবে মুশফিক হেসে উল্টো মজা করে ‘আমি তো খেলাই পারি না’। কথার এক পর্যায়ে মুশফিকের কাছে মুক্তা দোয়া চাইলে তার মাথায় হাত বুলিয়ে মুশফিক বলেন, ‘তুমি চিন্তা করবে না। পুরো দেশ তোমার সঙ্গে আছে। সবাই তোমার জন্য দোয়া করছে, তুমি সুস্থ হয়ে যাবে। আমার সঙ্গে যার দেখা হয় তাকেই তোমার কথা বলি, তোমার জন্য দোয়া চাই।’
সাতক্ষীরার সদর উপজেলার কামারবায়সা গ্রামের মুদি দোকানি ইব্রাহীম হোসেনের মেয়ে মুক্তামনির দেহে জন্মের দেড় বছর পর একটি ছোট মার্বেলের মতো গোটা দেখা দেয়। এরপর সেটি গাছের গুড়ির রূপ নিয়ে বড় হতে হতে ডান হাত শরীরের চেয়ে ভারী হয়ে উঠেছে।
১১ জুলাই সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে ঢাকায় আনা হয়। ১২ জুলাই ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর লিমফেটিক ম্যালফরমেশন রোগে আক্রান্ত বলে ধারণা করেন চিকিৎসকরা।

ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে ডা. সামন্ত লাল সেনের তত্ত্বাবধানে মুক্তামনির চিকিৎসা শুরু হয়েছে। এজন্য আট সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ডও গঠন করা হয়েছে।
সংবাদ মাধ্যমে তার বিরল রোগ সম্পর্কে প্রচার হলে, এরপর তার চিকিৎসার সার্বিক দায়িত্ব নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

Leave a Reply

%d bloggers like this: