বিএসসি নার্সিংয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে ৯০ শতাংশ নারী কোটার বিধান স্থগিত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৪ জুলাই ২০১৭, মঙ্গলবার: সরকারি সেবা ইনস্টিটিউট ও কলেজে চার বছর মেয়াদি বিএসসি নার্সিংয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে ৯০ শতাংশ নারী কোটার বিধান রেখে নয় বছর আগে সরকারের জারি করা একটি প্রজ্ঞাপনের কার্যকারিতা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার এই স্থগিতাদেশ দেন।
একই সঙ্গে রুলও জারি করেছেন আদালত। রুলে নারীদের ৯০ শতাংশ কোটার এই বিধান কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব, নার্সিং ও মিডওয়াইফারি উইংয়ের অতিরিক্ত সচিব, নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবং বাংলাদেশ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কাউন্সিলের রেজিস্ট্রারসহ নয়জনকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
ভর্তি সুবিধা থেকে বঞ্চিত শিক্ষার্থী মো. মাহফুজুর রহমান রিট আবেদনটি করেন। রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার শাখাওয়াত হোসেন খান। পরে তিনি আদেশের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।
ব্যারিস্টার শাখাওয়াত জানান, ২০০৮ সালের ৩ জানুয়ারি স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নার্সিং ও পরিদর্শন শাখা থেকে সরকারি সেবা ইনস্টিটিউট ও কলেজের চার বছর মেয়াদি বিএসসি নার্সিং কোর্সে ভর্তিসংক্রান্ত একটি নীতিমালা জারি করে। ওই নীতিমালায় ছাত্র-ছাত্রীদের ভর্তিসংক্রান্ত শর্তাবলি অধ্যায়ের ৮ নম্বর কলামে বলা হয়, সেবা ইনস্টিটিউট বা কলেজের মোট আসনের সংখ্যার অনধিক ১০ শতাংশ আসন পুরুষ প্রার্থী কর্তৃক পূরণ করা হবে। বাকি ৯০ শতাংশ ভর্তি করা হয় নারী শিক্ষার্থীদের।
সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী বলেন, ভর্তি ক্ষেত্রে এই বিধান সংবিধানের ২৮(৩) অনুচ্ছেদে বর্ণিত মৌলিক অধিকারের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। আদালত আমাদের বক্তব্য শুনে সরকারের জারি করা ওই বিজ্ঞপ্তি ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেন। একই সঙ্গে রুলও দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*