বিএফইউজে-সিইউজে অভিনন্দন জানিয়েছে মইনুদ্দীন কাদেরী শওকতকে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৪ ফেব্র“য়ারী: একুশ উৎসব পরিষদ সম্মাননা পাওয়ায় বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) বিশিষ্ট সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধা মইনুদ্দীন কাদেরী শওকতকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। nEWS pHOTO-24
২৩ ফেব্র“য়ারি রাতে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবস্থ সিইউজে অফিসে বিএফইউজে সহ-সভাপতি শহীদ উল আলম সিইউজে সভাপতি এজাজ ইউসুফী, সাধারণ সম্পাদক মো. হাসান ফেরদৌসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ মইনুদ্দীন কাদেরী শওকতকে পুষ্পস্তবক প্রদান করে অভিনন্দন জানান। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক আজাদীর সিনিয়র সহ-সম্পাদক ও সিইউজে ইউনিট প্রধান খোরশেদ আলম, বিএফইউজে সাবেক যুগ্ম মহাসচিব নির্মল চন্দ্র দাশ, বিএফইউজে নির্বাহী পরিষদের সাবেক সদস্য, চট্টগ্রাম ফটো সাংবাদিক সমিতির সভাপতি দিদারুল আলম, সাংবাদিক নেতা কল্যাণ চক্রবর্ত্তী, পুলক সরকার, মিহির কান্তি পাল, উজ্জ্বল চৌধুরী প্রমুখ।
এ অনাড়ম্বর ও অভিনন্দন ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিএফইউজে‘র সহ-সভাপতি শহিদ উল আলম বলেন, মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত সাহসী সাংবাদিকতার অন্যতম অগ্রপথিক। গণতন্ত্র ও গণমানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় স্বৈর-সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে আপোষহীন লেখনী চালানোয় তার সম্পাদিত পত্রিকা ইজতিহাদ’র প্রকাশনা নিষিদ্ধ করেছিল। মাথায় হুলিয়া নিয়ে মত প্রকাশের স্বাধীনতার জন্য লড়াই করেছিলেন মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত।
চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি কবি এজাজ ইউসুফী বলেন, বিশ্ব প্রেস কাউন্সিল নির্বাহী পরিষদের সদস্য হিসেবে মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত বাংলাদেশের জন্য সম্মান বয়ে এনেছিলেন। ২০০৭ সালে তার রিপোর্ট বিশ্বের সেরা রিপোর্ট হিসেবে ডঅচঈ বিবেচনা করে ঊীপবষষবহঃ ্ ঈধহফরফ রিপোর্ট বলে ঘোষণা দিয়েছিল। যা চট্টগ্রামসহ সারা দেশের সাংবাদিকদের জন্য সম্মান ও গৌরবের। কোন সংগঠনের সদস্যদের মধ্যে মৈত্রীর বন্ধন সৃষ্টি করে কাজ করা ও নেতৃত্ব দেওয়ার যোগ্যতা মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত এর রয়েছে।
চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. হাসান ফেরদৌস বলেন, হীনমান্যতা ও সংকীর্ণতার উর্ধ্বে উঠার অপরাগতার কারণে আমরা সাংবাদিক মইনুদ্দীন কাদেরী শওকতকে যথাযথভাবে মূল্যায়ন করতে ও সম্মান দেখাতে পারি নাই। তিনি স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে সাহসী, কিংবদন্তী সাংবাদিক। তার দীর্ঘায়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা করি।
দৈনিক আজাদীর সিনিয়র সহ-সম্পাদক খোরশেদ আলম বলেন, আমাদের অনেক ভাল কাজে মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত অন্তহীন প্রেরণার উৎস। অগ্রজ অভিভাবক হিসেবে তিনি সব সময় আমাদের পাশে থাকেন।
বিএফইউজে নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ফটো সাংবাদিক সমিতির সভাপতি দিদারুল আলম বলেন, মইনুদ্দীন কাদেরী শওকত আমাদের গর্বের ধন-আমাদের অহংকার। চট্টগ্রাম সাংবাদিক হাউজিং সোসাইটি চেয়ারম্যান হিসাবে এই সোসাইটিকে আইন, বিধি, নীতি অনুসারে পরিচালনা করতে তিনি যথেষ্ট যোগ্যতার পরিচয় দিয়েছেন। আমার সকলে তার দীর্ঘায়ু কামনা করি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: