বাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে একদল তরুণ গ্রীষ্মবিলাস করেছেন একটু ভিন্নভাবে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৯ জুন ২১০৭, শুক্রবার: ভয় লাগে হয় বুঝি ত্রিভুবন ভস্ম-
ওরে ভাই ভয় নাই পাকে ফল শস্য!
তপ্ত ভীষণ চুলা জ্বালি নিজ বক্ষে
পৃথিবী বসেছে পাকে, চেয়ে দেখ চক্ষে,
আম পাকে, জাম পাকে, ফল পাকে কত যে,
বুদ্ধি যে পাকে কত ছেলেদের মগজে!
-(গ্রীষ্ম) সুকুমার রায়
গ্রীষ্ম মানেই প্রচণ্ড দাবদাহ। গলদঘর্ম কী তা এ ঋতুতে এলেই বোঝা যায়। কদিন ধরেই ভোরের রোদেও বেশ তেজ। বাতাসও বেশ গরম। মনে হয়, আগুনের চুল্লি থেকে ধেয়ে আসছে বাতাস।
গরম থেকে বাঁচতে যে যার মতো ব্যবস্থা নিচ্ছেন। শীতল অনুভূতির খোঁজে কেউ ঢুকছেন শীতাতপনিয়ন্ত্রিত ঘরে। কেউবা গাছের ছায়ায়। আবার কেউ রোদে পোড়া শরীর ঠাণ্ডা করছেন পানিতে ডুবে।
বাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে একদল তরুণ গ্রীষ্মবিলাস করেছেন একটু ভিন্নভাবে। বিভিন্ন শ্রেণিপেশার পনেরজন একসঙ্গে টাক হয়ে নেমেছেন তিতাসে। বৃহস্পতিবার ভিন্নধর্মী এই গ্রীষ্ম উদযাপন ছিল বাঞ্ছারামপুরের মানুষের মুখে মুখে। দল বেঁধে টাক মাথা বেনজির ঘটনাই বটে!
পনেরো তরুণের একজন সাব্বির আহমেদ সুবীর তার ফেসবুক দেয়ালে গ্রীষ্মবিলাসের কিছু ছবি তুলে দিয়েছেন। যেখানে দেখা গেছে, সবাই হাসিমুখে তিতাস নদীতে গোসল করছেন। ছবির সঙ্গে দেয়া স্ট্যাটাসে সবার নাম দেয়া হয়েছে। সুবীর ছাড়াও বাকিরা হলেন-    সৈয়দ মোহাম্মদ আজিজ, মো: মহিউদ্দিন, সৈয়দ মোহাম্মদ খোকন,  আবদুল লতিফ লিটু, মো: জুয়েল আহমেদ, আতাউর রহমান সনেট, সজিব আহমেদ জয়, সোহেল আহমেদ,  বাকি বিল্লাল,  মো: রমজান আলী, তানজিবুল ইসলাম সুজন,  অপু আহমেদ সনেট ।
তারা সবাই স্থানীয় নিউ হলিউড সেলুনের নরসুন্দর নয়নের হাতে টাক হয়েছেন বলেও স্ট্যাটাসে উল্লেখ করা হয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: