বান্দরবানের বাইশারীতে আবারো সক্রিয় জাফর ও সজল চক্র

মোঃ নজরুল ইসলাম (টিটু), বান্দরবান : বান্দরবান নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে দীর্ঘদিন ধরে জাল জালিয়াতের ভিত্তিতে রাবার বাগান বিক্রি করে আসছিল জাফর ও সজলচক্র। জানা গেছে, জাফর ও সজল গ্র“পে প্রায় ২০ থেকে ২৫ জনের একটি চক্র রাবার বাগানের bandarbanমালিকের স্বাক্ষর থেকে শুরু করে প্রশাসনিক কর্মকর্তার সীল ও স্বাক্ষর ব্যবহার করে বেশ কিছু রাবার প্লট নাম মাত্র মূল্যে বিক্রি করে দেয়। ইতিমধ্যে মানসুর আহমেদ, আলী হাফেজ, মাসুমা’র তিনটি প্লট বিক্রি করে দিলে তারা জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করলে সাবেক জেলা প্রশাসক কে. এম. তারিকুল ইসলাম অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে সত্যতার প্রমাণ পান। পরে তিনি বিধি মোতাবেক প্লট তিনটি বাতিল করে স্ব-স্ব মালিককে হস্থান্তর করেন। এই ব্যাপারে সাবেক জেলা প্রশাসক কে. এম. তারিকুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে আলাপ করলে তিনি জানান, অভিযোগ পাওয়ার পরপরই তিনি হলফনামা গুলো যাচাইয়ের জন্য ঢাকা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের বিচার শাখায় তদন্তের জন্য প্রেরণ করেন। সেখানে হলফনামায় স্বাক্ষরিত প্রথম শ্রেষীর বিজ্ঞ ম্যাজিষ্ট্রেট আবদুল মালেক মিয়া’র বেতন রেজিষ্টারসহ কোথাও কোন অস্তিত্ব না পাওয়ায় তিনি প্লট গুলোকে বাতিল করে প্রকৃত মালিককে ফিরিয়ে দেন। তাছাড়া জাফর ও সজলের নামে ভূমি দখলেরও অভিযোগ আছে তিনি জানান। বাইশারীর স্থানীয়রা জানান, জাফর, সজল, হুমায়রা বিহারী (পাকিস্তানী), মুরাদ, কারী সৈয়দ হোসেন ও শাহজাদার সাথে লিপ্ত হয়ে ভূঁয়া স্বাক্ষর ও সীল ব্যবহারের করে দলিল সৃষ্টির মাধ্যমে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে আসল মালিকের অজ্ঞাতসারে ভূঁয়া মালিক দ্বারা ডাঃ রাগিব মঞ্জুর (বিহারী) কে রাবার বাগান বিক্রি করে দেয়। ফলে দীর্ঘদিন বাইশারীতে জাফর ও সজল চক্র দ্বারা শুধু রাবার বাগান মালিকই নয়, স্থানীয় অনেক মানুষও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসলে প্রথমে তারা ঘা ঢাকা দিলে এলাকায় স্বস্তি ফিরে আসে। পরে জাফরচক্র সু-কৌশলে আওয়ামীলীগে যোগ দিয়ে গোপনে বিহারীদের সাথে যোগাযোগ ঠিক রেখে আবারো রাবার বাগান বিক্রি করার চক্রান্তে লিপ্ত হয়ে এলাকায় অশান্তি সৃষ্টি করছে। ইতিমধ্যে প্রশাসনিক কিছু লোকের সাথে আতাত করার চেষ্টা করছে বলেও জানান স্থানীয়রা। বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মনিরুল হক জানান, বর্তমানে বাইশারীতে কোন বিহারী নাই। তারপরেও যদি কেউ বিহারী চক্রের সাথে যোগাযোগ রেখে এলাকায় অশান্তি সৃষ্টি করার চেষ্টা করে, তবে অবশ্যই তিনি তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। এলাকায় শান্তি বজায় রাখতে প্রভাবশালী বিহারী চক্রের সহায়তাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি জোরালো আহবান জানান স্থানীয়রা।

Leave a Reply

%d bloggers like this: