বান্দরবানের পাহাড়ে আজ শেষ হচ্ছে বৈসাবি

মোঃ নজরুল ইসলাম (টিটু), বান্দরবান : ঐতিহ্যবাহী আচার-অনুষ্ঠান, কৃষ্টি-সংস্কৃতি নানা আয়োজনে পালিত হচ্ছে আদিবাসী সাংগ্রাই (বৈসাবী) উৎসব। আরSAMSUNG CAMERA PICTURES বৈসাবির আনন্দ-উল্লাসে মেতে উঠেছে আদিবাসীরা। মারমাদের ঐতিহ্যবাহী জলকেলি, বৌদ্ধমূর্তি স্নান, পিঠা তৈরিসহ নানা বৈচিত্রময় অনুষ্ঠান দেখতে বান্দরবানে ভীড় জমিয়েছে দেশী-বিদেশী SAMSUNG CAMERA PICTURESপর্যটকেরা। সাংগ্রাইকে ঘিরে এখন উৎসবমূখর পরিবেশ বান্দরবানে। গতকাল বুধবার ১৫ এপ্রিল দুপুর ২টায় বান্দরবান রাজার মাঠে এবছরের সবচেয়ে বড় ঐতিহ্যবাহী জলকেলি উৎসবের SAMSUNG CAMERA PICTURESউদ্বোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণায়লনের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। এরপরে জলকেলিতে মেতে উঠে আদিবাসী মারমা তরুণ-তরুণীরা। তারা একে অপরের গায়ে পানি বর্ষণের মাধ্যমে বর্ষ বরণ ও বিদায়ের পাশাপাশি পূর্বের সকল ভুলত্র“টি ও গ্ল¬¬ানী ধুয়ে মুছে নেয়। আজ বৃহস্পতিবারও SAMSUNG CAMERA PICTURESবান্দরবানে দ্বিতীয় জলকেলি উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার বান্দরবান রাজগুরু জাদি থেকে বিকালে বৌদ্ধর্মর্তি সহকারে একটি শোভাযাত্রা শহরে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষীণ করে। পরে উজানীপাড়াস্থ সাঙ্গু নদীর চরে শতশত বৌদ্ধ ধর্মানুসারীরা বিশেষ প্রার্থনায় মিলিত হন এবং পবিত্র জল দিয়ে বৌদ্ধ মূর্তিকে স্নান করান। ১৫ এপ্রিল রাতে প্রধান রাজগুরু জাদিসহ বিভিন্ন এলাকায় বিশেষ প্রর্থনা, হাজারো মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জলন Bandarban pic-5এবং পল্লীগুলোতে পিঠা তৈরি উৎসব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে ঐতিহ্যবাহী জলকেলি ও বৌদ্ধর্মর্তি স্নানসহ নানা বৈচিত্রময় অনুষ্ঠানে ভীড় করেছেন দেশী-বিদেশী হাজারো পর্যটক। এছাড়াও আদিবাসীরা পিঠা তৈরি, আদি নৃত্য-গানসহ ধর্মীয় নানা আচার, সামাজিক রীতিনীতির মাধ্যমে নতুন বর্ষ বৈসাবী পালন করছে। আজ ১৬ এপ্রিল বৌদ্ধ বিহারগুলোতে সমবেত প্রার্থনা এবং দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় শেষ হবে আদিবাসীদের ৪দিন ব্যাপী বৈসাবী উৎসব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*