বাংলালিংক কার্যালয়ে গন্ডগোল, কর্মকর্তা অবরুদ্ধ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ ফেব্র“য়ারী: সহকর্মীকে চাকরিচ্যুতির প্রতিবাদে বাংলালিংকের উচ্চ পদস্থ এক কর্মকর্তাকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। রাজধানী গুলশানে বাংলালিংক প্রধান কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে প্রধান টেকনিক্যাল কর্মকর্তা (সিটিও) পিরিহেনি এলহামি তার কক্ষে আটকে যান। রাত পৌনে ১১টায় ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, প্রায় ২০০ কর্মকর্তা-কর্মচারী সিটিও এলহামিকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। তারা জ্যেষ্ঠ প্রকৌশলী শরিফুল ইসলাম ভূঁইয়ার চাকরিচ্যুতির প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। প্রস্তাবিত বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সভাপতি উজ্জ্বল পাল বলেন, ‘কর্মচারী ইউনিয়ন গঠন করায় শরিফুল ইসলামের উপর খড়গহস্ত হয়েছে কর্তৃপক্ষ।’bb
তিনি জানান, গত ৭ ফেব্রুয়ারি বাংলালিংকে ইউনিয়ন করার বিষয়টি অবহিত করে একটি প্রস্তাবিত কমিটি শ্রম মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়। শরিফুল ইসলাম প্রস্তাবিত কমিটির একজন সদস্য।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে কর্তৃপক্ষ শরিফুল ইসলামকে ডেকে নিয়ে চাকরিচ্যুতির চিঠি ধরিয়ে দেয়। এর পর থেকে আমরা সিটিওকে আটকে রেখেছি। শরিফুলকে চাকরিতে বহাল না করা পর্যন্ত আমরা তাকে অফিস থেকে বের হতে দেব না। রাত সাড়ে ১০টার দিকে এলহামি বের হতে চাইলে প্রধান ফটকে আটকা পড়েন। বিক্ষোভের মুখে প্রায় আধা ঘণ্টা অবস্থানের পর ভেতরে ঢুকে যান তিনি। রাত পৌনে ১১টার দিকে গুলশান থানার ওসিকে বাংলালিংক কার্যালয়ে ঢুকতে দেখা যায়। বাইরে বেশ কিছু পুলিশ সদস্যও অবস্থান নিয়েছেন।
গুলশান থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘খবর শুনে আমরা এখানে এসেছি। আমরা বাংলালিংক কর্তৃপক্ষকে শান্তিপূর্ণ সমাধানের অনুরোধ করেছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*