বাংলাদেশ এ্যাতো ভালো করছে, তো সহিংসতা কেনো

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : পররাষ্ট্র মন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেছেন, জন কেরি বলেছেন বাংলাদেশের চলমান অবস্থা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন। তিনি বলেছেন বাংলাদেশ বিভিন্ন ক্ষেত্রে Jon Kariএ্যাতো ভালো করছে অথচ সেখানে এ্যাতো সহিংসতা কেনো? আপনারা দ্রুত এর সমাধান করুন। ভয়েস অব আমেরিকা বাংলা বিভাগের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই কথা বলেন। তিনি সংলাপ প্রসঙ্গে বলেন, যারা সন্ত্রাস করে তাদের সাথে কোনো সংলাপ নয়। জামায়াতের সঙ্গ ছেড়ে, সন্ত্রাস ছেড়ে গণতান্ত্রিক ধারায় ফিরে আসলে বিএনপির সঙ্গে সংলাপ করতে তারা রাজি। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী হোয়াইট হাউজের আয়োজনে অনুষ্ঠিত জঙ্গীবাদ বিরোধী সম্মেলনে অংশ নেন। তিনি বৈঠক করেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির সঙ্গে এবং জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনের সঙ্গে। জঙ্গীবাদ বিরোধী সম্মেলনে দেয়া বক্তব্যে তিনি কি কি বললেন, জন কেরি এবং বান কি মুনের সঙ্গে বৈঠকে কি বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন সেই সব ব্যাপারে সাক্ষাতকার দিয়েছেন ভয়েস অব আমেরিকা বাংলা বিভাগের সঙ্গে। সাক্ষাতকার নিয়েছেন সেলিম হোসেন। পররাস্ট্রমন্ত্রী হিসাবে প্রথম বারের মতো যুক্তরাষ্ট্র সফর করলেন আবুল হাসান মাহমুদ আলী। জঙ্গীবাদ বিরোধী সম্মেলনে কি বক্তব্য দিলেন সে প্রশ্নে তিনি বললেন: বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গীবাদের রূপ ভিন্ন ভিন্ন রকম। কোনো একটা ডেফিনিট ফর্মে তা আবদ্ধ করা যায় না। মধ্যপ্রাচ্যে আইএস যা করছে প্রধানত তারই বিরুদ্ধে এই সম্মেলন। বাংলাদেশও তাতে যোগ দেয়। তিনি বলেন সম্মেলনে দেয়া বক্তব্যে তিনি সংক্ষেপে বিএনপি জামাতের আন্দোলন ও সহিংসতার কথা বলেছেন। তিনি অগ্রগতির লক্ষ্যে বাংলাদেশের সরকারের নানা পদক্ষেপ তুলে ধরেছেন। তিনি বলেন যুব ও তরুণদের উন্নয়নে সরকারের কর্মসূচির কথা তিনি বলেছেন, আইটি ক্ষেত্রে উন্নতির কথা, নারীর ক্ষমতায়নের কথা, জ্ঞান ভিত্তিক সমাজ গঠনের কথা, নতুন প্রজন্মকে বিজ্ঞান মনস্ক করে গড়ে তুলবার সরকারের প্রচেষ্টার কথাও তিনি তুলে ধরেছেন সম্মেলনে দেয়া বক্তব্যে। তিনি বলেন নারীর ক্ষমতায়ন, নারী শিক্ষায় বাংলাদেশ যে রোল মডেল তা তিনি তুলে ধরেছেন সম্মেলনে। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষায় মেয়েরা এগিয়ে, জাতিসংঘে বাংলাদেশ শান্তি রক্ষা বাহিনীর সাফল্যসহ নানা বিষয় তিনি তুলে ধরেছেন বলে জানান। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির সঙ্গে বৈঠকে কি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয় সে সম্পর্কে মাহমুদ আলী বলেন বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক নিয়েই কথা হয়েছে। তিনি বলেন দুদেশের সম্পর্ক অনেক শক্তিশালী। এ সম্পর্ক আরো কিভাবে বাড়িয়ে আরো শক্তিশালী করা যায় সে সম্পর্কে কথা হয়েছে। বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব সম্পর্কে জন কেরি কি বললেন সে প্রশ্নে তিনি বলেন; জন কেরি বলেছেন যে যুক্তরাষ্ট্র এতে উদ্বিগ্ন। তিনি বলেছেন বাংলাদেশ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এ্যাতো ভালো করছে অথচ সেখানে এ্যাতো সহিংসতা কেনো? আপনারা দ্রুত এর সমাধান করুন। বাংলাদেশের সমস্যা সমাধানে যুক্তরাষ্ট্র কি ভূমিকা রাখতে পারে এমন কিছু জন কেরি বলেছেন কি না সে প্রশ্নে মাহমুদ আলী বলেন, না। তা স্পষ্ট করে কিছু বলেন নি। তবে দ্রুত যেনো সংকট কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হয় সে ব্যবস্থা নেয়ার আহবান জানিয়েছেন জন কেরি। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের বৈধতা নিয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কি মত তা জানতে চাইলে মাহমুদ আলী বলেন। এখন তো সেটি নিয়ে কারো মনো কোনো প্রশ্ন নেই। এখন তা কেউ তুলছেও না। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নও বলেছে যে সরকারের সঙ্গে তারা কাজ করছে। বাংলাদেশের চলমান হরতাল অবরোধ সম্পর্কে জন কেরি কি বললেন সে বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন : আমরা তাকে আশ্বস্ত করেছি যে সরকার জনগণকে সাথে নিয়ে তার মোকাবেলা করছে। এবং অবস্থা এখন অনেক ভালোর দিকে। এ নিয়ে জন কেরির মন্তব্য কি ছিল জানতে চাইলে তিনি বলেন তিনি বলেছেন হরতাল অবরোধ সহিংসতা-তো গণতান্ত্রিক পদ্ধতি নয়। দ্রুত এর সমাধানের আহবান জানিয়েছেন তিনি। জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনের সঙ্গে বৈঠকে কি বিষয়ে আলোচনা হয়েছে জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী বলেন তিনি বাংলাদেশের সহিংসতা ও প্রাণহানিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। বাংলাদেশের উজ্জল ভবিষ্যতও কামনা করেছেন বান কি মুন। বিরোধীপক্ষের সঙ্গে সংলাপের ব্যাপারে কোনো কথা হয়েছে কিনা সে প্রশ্নে তিনি বলেন : যারা সন্ত্রাস করে তাদের সাথে কোনো সংলাপ নয়। জামাতের সঙ্গ ছেড়ে, সন্ত্রাস ছেড়ে গণতান্ত্রিক ধারায় ফিরে আসলে বিএনপির সঙ্গে সংলাপ করতে তারা রাজি। সূত্র : আমাদের সময়.কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*