বাংলাদেশের অর্থনীতি ঝুঁকিতে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১০ জুলাই: বিদেশি ও সংখ্যালঘুদের লক্ষ্য করে একের পর এক সন্ত্রাসী হামলা হচ্ছে বাংলাদেশে। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে এক সন্ত্রাসী হামলায় নিহত হয়েছেন ১৭ বিদেশিসহ ২০ জিম্মি। সন্ত্রাসী হামলার এ ধারাবাহিকতা বাংলাদেশের অর্থনীতির ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে বলে মনে করছে আন্তর্জাতিক ঋণমান নির্ণয়কারী প্রতিষ্ঠান মুডি’স। e
সম্প্রতি প্রকাশিত মুডি’সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ ধরনের সন্ত্রাসী হামলা বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ঝুঁকি বাড়াবে। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে দেশের প্রবৃদ্ধিতে। সামগ্রিকভাবে বাংলাদেশের ঋণমানেও এর ছাপ পড়তে পারে।
এর কারণ হিসেবে মুডি’স বলছে, সন্ত্রাসী কার্যক্রম বাংলাদেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ব্যাহত করতে পারে। আর ঋণমান নিরূপণের একটি অন্যতম মানদণ্ড হিসেবে বিবেচনা করা হয় রাজনৈতিক স্থিতিশীলতাকে।
গুলশানের মতো সহিংস ঘটনা আগামী দিনগুলোয় বাংলাদেশের রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা বেড়ে যাওয়ার সংকেত দিচ্ছে। আর রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বিঘ্ন হলে, অর্থনৈতিক ও প্রাতিষ্ঠানিক লক্ষ্য থেকে সরকারের মনোযোগ সরে যেতে পারে। পাশাপাশি দেশের অভ্যন্তরীণ ও বৈশ্বিক রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা দীর্ঘ হলে আস্থা হারাবেন বিনিয়োগকারীরা। এতে দেশের অভ্যন্তরে বৈদেশিক মুদ্রাপ্রবাহও বাধাগ্রস্ত হবে।
সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে বাংলাদেশের সক্ষমতায় সরাসরি নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করছে মুডি’স।
বিদেশি বিনিয়োগে নেতিবাচক প্রভাব দেশের তৈরি পোশাক রপ্তানির জন্য বড় ধরনের ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। দেশের মোট দেশজ উত্পাদনে (জিডিপি) রপ্তানি খাতের অবদান ১৬.৩ শতাংশ। আর এ রপ্তানি আয়ের ৮০ শতাংশই আসছে তৈরি পোশাক খাত থেকে। ফলে প্রবৃদ্ধির জন্য খাতটির ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
গ্লোবাল টেররিজম ডাটাবেজের সূত্র উল্লেখ করে মুডি’সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বছর বাংলাদেশে সন্ত্রাসী ঘটনার সংখ্যা ছিল ৪৬৫। ২০১২ সালে এ ধরনের ঘটনা ঘটে মাত্র ১৮টি। মুডি’সেরই অন্য এক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, কোনো দেশের অর্থনীতির ওপর সহিংস হামলার এমন ঘটনা দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব ফেলতে পারে। এর প্রভাব পড়ে প্রবৃদ্ধি থেকে শুরু করে বিনিয়োগে।
মুডি’স বলছে, জনপ্রতি নিম্ন আয়, নিয়মিত বাজেট ঘাটতি ও দ্বিধাবিভক্ত রাজনৈতিক পরিবেশ বাংলাদেশে ঋণমান উন্নয়নের ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*