বমির ভাব শিশুদের মধ্যে প্রায়ই দেখা যায় কিন্ত কেন ?

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : ডিসেম্বর ২৫, ২০১৬

খাওয়াতে চাইলে ঠোঁট উল্টে বমির ভাব শিশুদের মধ্যে প্রায়ই দেখা যায়। তবে এটা কেবল অনিচ্ছা নয়, কোনো অসুখের লক্ষণ বা উপসর্গও হতে পারে।
মনোজাগতিক কারণেও শিশুরা বমির মতো ভাব করে থাকে। হয়তো সে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করে জানাতে চায়, স্কুলে যেতে তার ভালো লাগে না অথবা কোনো দৃশ্য বা গন্ধ তার অসহ্য লাগছে কিংবা এ মুহূর্তে সে খেতে চাইছে না। অনেক শিশুই আছে যাদের মানসিক চাপ বা টেনশনের বহিঃপ্রকাশ বমির মাধ্যমে ঘটে।

আবার বেশির ভাগ শিশুরই সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে খেতে ইচ্ছে করে না, বমি ভাব হয়। কোনো খাবার অপছন্দের হলে এমন হতে পারে। শিশুদের বদহজম বা পেটে গ্যাসও হতে পারে। চর্বিযুক্ত খাবার, ফাস্ট ফুড বা চকলেট বেশি খেয়ে ফেললে পেটে গ্যাস হয়ে বমি ভাব হতে পারে। যেকোনো ওষুধ খাওয়ার সময় শিশুরা ওয়াক করতে পারে।
তবে বমি বা বমি ভাবের নেপথ্যে কোনো গুরুতর কারণও থাকতে পারে। রক্তশূন্যতা, যকৃতের প্রদাহ বা হেপাটাইটিস, কৃমি সংক্রমণ, মূত্রতন্ত্রের সংক্রমণ এমনকি মস্তিষ্কের টিউমার হলেও বমি বা বমি ভাব হতে পারে।

কী করবেন?
*স্কুলে যাওয়ার দুশ্চিন্তা থাকলে এমন হয়। এ সময় শিশু ঠিকমতো নাশতাও খেতে চায় না। খেয়াল করুন, ছুটির দিনেও এমন হয়, নাকি কেবল স্কুলের দিন? স্কুলে তার কোনো সমস্যা হচ্ছে কি না খোঁজ নিন।
*শিশু কোনো মানসিক টানাপোড়েনে ভুগছে কি না লক্ষ করুন।
*চোখ হলুদ, প্রস্রাবের হলুদ রং হেপাটাইটিসের লক্ষণ, লিভারের পরীক্ষা করিয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়।
*শৈশবে ব্রেন টিউমারের কারণে বমি ভাব ও বমি হতে পারে।
*অ্যান্টিবায়োটিক বা খিঁচুনি নিরোধক ওষুধের কারণে শিশুর বমি ভাব হতে পারে।
*অল্প বয়সে মূত্রতন্ত্রের সংক্রমণে বমি ভাব হতে পারে। তাই প্রস্রাবের কালচার পরীক্ষা করাতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*