বঙ্গবন্ধুর খুনীচক্রকে রক্ষা করেছে জিয়া, এরশাদ ও খালেদা সরকার: ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৯ আগস্ট ২০১৯ ইংরেজী, সোমবার: চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু বলেছেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের নৃশংস হত্যাকান্ডের বিচার বন্ধ ছিল দীর্ঘদিন। এ দীর্ঘ বছরগুলোতে জিয়াউর রহমানের সামরিকি ও বিএনপি সরকার, এরশাদের সামরিক জাতীয় পার্টি সরকার এবং খালেদা জিয়ার দুই আমলের বিএনপি সরকার বাংলাদেশের ইতিহাসের এ কলঙ্কজনক হত্যাকান্ডের বিচার হতে দেয়নি; বরং এ সরকারগুলো বঙ্গন্ধুর হত্যাকারীদের দেশ বিদেশে বহুভাবে সহযোগিতা করেছে।

গতকাল ১৯ আগষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও শোক দিবস উপলক্ষে জাতীয় শোক দিবস উদযাপন পরিষদ বঙ্গন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা আয়োজিত মাসব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১০নং দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ড কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি একথা বলেন। তিনি আরো বলেন, জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রপতি থাকা অবস্থায় হত্যাকারীদের বিদেশে বাংলাদেশের দূতাবাসগুলোতে চাকরি এবং তাঁদের পদোন্নতির ব্যবস্থা করেছিলেন। বিভিন্ন ষড়যন্ত্রমূলক কর্মকান্ড এবং দেশের ভেতরে অভুত্থানের চেষ্টার সঙ্গে তাঁদের সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া গেলেও তাঁদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এরশাদ সরকারের আমলেও দূতাবাসগুলোতে খুনিদের পদোন্নতি ও সহযোগিতার ধারা অব্যাহত থেকেছে। শুধু তা-ই নয়, এরশাদ সরকারের সহায়তায় তাঁরা দেশে ফিরে এসে একাধিক রাজনৈতিক দল (প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক শক্তিপ্রগশ ও ফ্রিডম পার্টি) গঠনের সযোগ পেয়েছেন। তাঁদের সংসদে বসারও সুযোগ করে দেওয়া হয়েছিল। নব্বইয়ের পর খালেদা জিয়ার দুই সরকারও তাঁদের সহযোগিতা করেছিল। সুপ্রিম কোর্টে বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিচারপ্রক্রিয়া শেষ হতে দেয়নি।জাতীয় শোক দিবস উদযাপন পরিষদ বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার কো- চেয়ারম্যান ১০নং দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো: ইকবাল চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত শোক সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আয়োজক পরিষদের সমন্বয়কারী সাবেক ছাত্রনেতা এম.এ.মান্নান শিমুল, আকবর শাহ থানা আওয়ামী লীগের সংগঠনিক সম্পাদক মাস্টার কামাল উদ্দিন, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবু সুফিয়ান, ১০নং দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা প্রদীপ দেবনাথ, মাহফুজুর রহমান, আফছারুল আলম, সাইদুর রহমান পুতুল, শংকর দাশ, মো: সেলিম, মহানগর ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক রোকন উদ্দিন চৌধুরী, চ.বি ছাত্রলীগ নেতা রিয়াদ হোসেন, ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা মো: মাসুম, ছগীর আলম, আলীম উদ্দিন, ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা আলমগীর হোসেন, আবু সালাম, মো: ইউনুস, আবছার চৌধুরী তুহিন, মো: তানভীর হোসেন, মো; বাবলু, রিত্তিক দাশ সানি প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*