ফেসবুকে লেখা পোস্ট করে তোপের মুখে নারী সাংবাদিক

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৬ নভেম্বর: শৈশবে মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর শিক্ষকদের যৌন অত্যাচারের কথা জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি লেখা পোস্ট দিয়ে বেকায়দায় পড়েছেন ভারতের কেরালা রাজ্যের এক নারী সাংবাদিক।
মাদ্রাসায় কীভাবে শিশুদের ওপর যৌন নির্যাতন চালানো হয় এই সংক্রান্ত একটি লেখা পোস্ট করেন তার ফেসবুক পেজে। এর পরেই ঘটে বিপত্তি। কিছু সময়ের জন্য তার ফেসবুক ব্লক করে দেয়া হয় এবং তাকে পড়তে হয়ে নিপীড়নের মুখে। কেরেলার এক স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে কাজ করেন ভিপি রেজিনা। জানিয়েছেন, শৈশবে অন্যান্যদের সঙ্গে তিনিও মাদ্রাসায় যেতেন।facebook
রেজিনার ভাষায়, ‘ওস্তাদ (শিক্ষক) আমার ছেলে সহপাঠীদের কাছে ডাকতেন এবং প্যান্টের চেইন খুলে দেখতেন। কেউ বাধা দিলে, তিনি বলতেন, আকার ঠিক আছে কিনা পরীক্ষা করছি।’
যখন আমি চতুর্থ শ্রেণীতে উঠলাম তখন দেখলাম ওস্তাদ মেয়েদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে স্পর্শ করে। এমনকী রাতে পড়তে আসার জন্য বলতে থাকে। অথচ ওই অঞ্চলে রাতে বিদ্যুৎ সংযোগ থাকতো না বলে জানিয়েছেন রেজিনা। রেজিনা বলেন, অনেক ছেলে এবং মেয়ে শুধুমাত্র এসব নিপীড়নের জন্য ওই মাদ্রাসা ছেড়ে চলে যায়।
রেজিনার এই পোস্ট নিয়ে ব্যাপক বিতর্কের সৃষ্টি হয়। এর পক্ষে এবং বিপক্ষে প্রচুর মতামত আসতে থাকে। রেজিনা দাবি করেন, ‘এসব গায়ে জ্বালা ধরানো মন্তব্য এবং হুমকির কারণে ব্যক্তিজীবন নিয়ে আমি ভীত নই। কারণ আমি সব সময় আল্লাহর ওপর ভরসা রাখি।’
বিভিন্ন মন্তব্যের ঝড়ে ভেসে যাচ্ছে রেজিনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট। এছাড়াও বিভিন্ন ব্যক্তি তার অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে রির্পোট করায় এটি সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। সূত্র: ঢাকাটাইমস

Leave a Reply

%d bloggers like this: